অটিস্টিক শিশুরা সমাজের বোঝা নয় : শিক্ষামন্ত্রী

90

স্টাফ রিপোর্টার : শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, আমরা যারা শিক্ষক তাদের আগে আলোকিত হতে হবে। অনেক শিক্ষক অটিস্টিকদের স্বাভাবিকভাবে নিতে পারে না। তিনি বলেন, আমরা পর্যায়ক্রমে সব শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করব। শিক্ষা মন্ত্রণালয় ইতোমধ্যে অটিজম বিষয়ে প্রায় ত্রিশ হাজার শিক্ষককে প্রশিক্ষণ দিয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী গতকাল সকালে রাজশাহীর শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান মিলনায়তনে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ কর্তৃক বাস্তবায়িত ন্যাশনাল একাডেমি ফর অটিজম এন্ড নিউরো-ডেভেলপমেন্টাল ডিজঅ্যাবিলিটি প্রকল্পের আয়োজনে টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে ‘অটিজম ও এনডিডি শিক্ষার্থীদের শিক্ষার মূলধারায় একীভূতকরণ’ শীর্ষক বিভাগীয় সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে একথা বলেন। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমরা অটিস্টিক শিশুদের মূলধারায় নিয়ে আসতে চাই। অটিস্টিক শিশুরা সমাজের জন্য বোঝা নয়। অনেক ক্ষেত্রেই তাদের বিশেষ প্রতিভা থাকে। পৃথিবীর অনেক বড় বড় বিজ্ঞানী, আর্টিস্ট তারাও কোন না কোন দিকে অটিস্টিক ছিলো। সমাজে সত্যিকারের বোঝা আমরা, যারা স্বাভাবিক বলে নিজেদের ভাবি। আমরা দুর্নীতিবাজ, সন্ত্রাসী ও নেশায় আসক্ত। একটি জাতি তার পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী অথবা ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর প্রতি কতটা দায়িত্বশীল তার উপর নির্ভর করে সে জাতি কতটা উন্নত। অটিস্টিক শিশুদের যে ভিন্নতা তা আমরা ইতিবাচকভাবে ভাবতে শিখেছি। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ গোলাম ফারুক এর সভাপতিত্বে এতে রাজশাহীর বিভিন্ন অটিজম স্কুলের ৪০০ জন শিক্ষক অংশ নেন। সেমিনারে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব সোহরাব হোসাইন ও রাজশাহীর আনন্দ স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি শাহীন আক্তার রেনী। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক সৈয়দ ড. মো. গোলাম ফারুকের সভাপতিত্বে এতে স্বাগত বক্তব্য দেন এনএএডি প্রকল্পের পরিচালক ড. মোহাম্মদ দিদারুল আলম। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অটিজম ও এনডিডি বিষয়ক মাস্টার ট্রেইনার ড. ডিএম ফিরোজ শাহ্। পরে মন্ত্রী রাজশাহী কলেজ অডিটোরিয়ামে দেশের ১৩টি শতবর্ষী সরকারি কলেজসমূহের শিক্ষার উৎকর্ষ সাধন কর্মশালার উদ্বোধন করেন।

SHARE