দুই বাংলার কবি সাহিত্যিক ও লেখকদের মিলনমেলা

73

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীতে দুই দিনব্যাপী জীবনানন্দ কবিতা মেলার বর্ণাঢ্য উদ্বোধন হয়েছে। কবিকুঞ্জের আয়োজনে গতকাল শুক্রবার বেলা ১১ টায় শাহমখদুম কলেজ প্রাঙ্গণে মেলার উদ্বোধনী জাতীয় সঙ্গীত ও পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে জীবনানন্দ কবিতা মেলার উদ্বোধন করেন কবি মাকিদ হায়দার। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।
পরে আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাসিক মেয়র বলেন, কবিকুঞ্জ সারাবছর বিভিন্ন সাংস্কৃতিক প্রোগ্রামের আয়োজন করে। যেখানে বিভিন্ন ক্ষেত্রের দিকপালদের সমাগত ঘটে। এই আয়োজনের জন্য কবিকুঞ্জকে ধন্যবাদ জানাই। আগামীতে বারে বারে এই রকম অনুষ্ঠান রাজশাহীতে হবে-এটিই কামনা করছি।
সম্মানিত অতিথির বক্তব্যে উপমহাদেশের প্রখ্যাত কথা সাহিত্যিক হাসান আজিজুল হক বলেন, আমাদের বহির কাঠামো একটু আধটু ঠিক হচ্ছে। আমাদের অন্তর কাঠামোর সামগ্রিকভাবে উন্নয়ন প্রয়োজন। ‘পশ্চাতে রেখেছ যারে, সে তোমাকে পশ্চাতে টানিছে’-এই কথাটি দেশের মানুষকে মনে রাখতে হবে। যতই তুমি দেশের সাধারণ মানুষকে পেছনে ফেলে রাখার চেষ্টা করবে, ততই তোমরা পিছিয়ে পড়বে, সামনে এগুতে পারবে না। যে অস্ত্রের ধার পড়ে গেছে সে অস্ত্রকে কর্মকারের দোকানে গিয়ে ধার দেয়ার মতই আমাদের উচিৎ চেতনাকে ধার দেয়া। পৃথিবীর বড় বড় দেশে এটি ঘটে না। দুর্ভাগ্যক্রমে এখনো আমরা এই ধরনের সমাজ নির্মাণ করতে পারিনি।
তিনি আরো বলেন, রাজশাহীর সামগ্রিক উন্নয়ন ঘটুক, সাংস্কৃতিক উন্নয়ন ঘটুক, মানুষের প্রতি মানুষের ভালোবাসার আরো উন্নয়ন ঘটুক, মানুষের প্রতি মানুষের সহযোগিতা আরো বাড়–ক এবং এই কথাটি মনে রাখতে যে কোন সংস্কৃতি যদি বৃহত্তর পরিসীমায় নিতে না পারা যায়, তাহলে সে ওইটাই বলবে, ‘পশ্চাতে রেখেছ যারে, সে তোমাকে পশ্চাতে টানিছে’। দেশের ১৬ কোটি মানুষ পেছন যদি আমাদের টানে আমরা এক পাও এগুতে পারব না। মানুষের সাথে মানুষের সম্পর্ক যাতে আরো দৃঢ় হয়, এটিই জীবনানন্দ কবিতা মেলার মূখ্য উদ্দেশ্য।

কবিকুঞ্জ সভাপতি প্রফেসর কবি রুহুল আমিন প্রামাণিকের সভাপতিত্বে মেলার উদ্বোধক ছিলেন কবি মাকিদ হায়দার। মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথির বক্তব্য দেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট রাজশাহীর সভাপতি ভাষাসৈনিক আবুল হোসেন, বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও বরীন্দ্র গবেষক প্রফেসর সনৎ কুমার সাহা, বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের সদস্য কবি আসাদ মান্নান, কবি ও গবেষক ড. তসিকুল ইসলাম রাজা, রাজশাহী বার সমিতির সভাপতি লোকমান আলী প্রমুখ।
প্রয়াত কবি মালেক মেহমুদকে উৎসর্গকৃত অনুষ্ঠানে স্বাগত সম্ভাষণ নিয়ে আসেন কবিকুঞ্জের সাধারণ সম্পাদক আরিফুল হক কুমার। এতে শোক প্রস্তাব উত্থাপন করেন কবি কুঞ্জের কোষাধ্যক্ষ কবি আলমগীর মালেক। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান আলী বরজাহান, বাকশিসের জেলা সভাপতি অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, কবি অনিক মাহমুদ, রাজশাহী গ্রাম থিয়েটারের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক কামারুল্লাহ সরকার, রাজশাহী ব্যবসায়ী সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সেকান্দার আলী, কবি ফারুক মাহমুদ, কবি শোয়েব শাহরিয়ার, কবি শান্তি মুখোপাধ্যায় প্রমুখ।
কবিতা মেলায় ওপার বাংলার কবি জয়ন্ত বাগচী, নীহার রঞ্জন সেনগুপ্ত, শান্তিময় মুখোপাধ্যায়, অলোক বিশ্বাস, আয়েশা খাতুন, শর্মিষ্ঠা বিশ্বাস, দেবারতি ভট্টাচার্য ও সত্যজিৎ বিশ্বাসসহ দেশের খ্যাতনামা কবি, সাহিত্যিক ও লেখকবৃন্দ অংশ নিচ্ছেন।
অনুষ্ঠানমালার বিভিন্ন পর্বে কবিকণ্ঠে কবিতাপাঠ, ছোট গল্পপাঠ, একক ও দলীয় আবৃত্তি ও আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন কবিকুঞ্জের সহসভাপতি কবি বিথী মজিদা, কোষাধ্যক্ষ কবি আলমগীর মালেক, সহসাধারণ সম্পাদক কবি কামরুল বাহার আরিফ প্রমুখ।

SHARE