রাজশাহী কর অঞ্চলে পাঁচ বছরে আয় বেড়েছে দ্বিগুণ

159

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী কর অঞ্চলে ২০১৪-১৫ অর্থবছরে আয়কর আদায় করা হয়েছিল ৩২১ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। আর সবশেষ ২০১৮-১৯ অর্থবছরে আয়কর আদায় হয়েছে প্রায় ৭৪১ কোটি টাকা। ৫ বছরের ব্যবধানে আয়কর যেমন দ্বিগুণ হয়েছে, তেমনি বেড়েছে করদাতার সংখ্যাও। পরিবর্তিতে আয়কর আইন যথাযথভাবে প্রয়োগ ও বাস্তবায়ন এবং  কর কর্তন কার্যক্রম কঠোরভাবে মনিটরিং করায় আয়কর আদায়ে রাজশাহী কর অঞ্চলে সফলতা এসেছে বলে দাবি করেছেন আঞ্চলিক কর কমিশনার ড. খন্দকার মো. ফেরদৌস আলম। মঙ্গলবার  তিনি  এ তথ্য জানান।

আঞ্চলিক কর কমিশনার ড. খন্দকার মো. ফেরদৌস আলম বলেন, ‘জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের নির্দেশনা অনুযায়ী আয়কর মেলাসহ সব কার্যক্রমে করদাতাদের রিটার্ন পূরণে সহায়তা প্রদানসহ করদাতাদের ওয়ানস্টপ সর্ভিস প্রদান করা হচ্ছে। বছরব্যাপী নানা আয়োজন করায় জনগণের মধ্যে আয়কর প্রদানে সচেতনতা বেড়েছে। ফলে কর আদায়ের পরিমাণও প্রতি বছর বাড়ছে।’

তবে রাজশাহী কর অঞ্চলের কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারী এক্ষেত্রে আঞ্চলিক কর কমিশনার ড. খন্দকার ফেরদৌস আলমের কঠোর পরিশ্রম ও নানা পদক্ষেপের ভূমিকা রয়েছে বলে জানিয়েছেন।

তারা জানান, ড. খন্দকার ফেরদৌস আলম কর কমিশনার হিসাবে যোগদানের পর নতুন করদাতা খোঁজার পাশাপাশি কর আদায়ের পরিমাণ বাড়াতে আয়কর বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে কর্মকৌশল নির্ধারণ করেন।

দুই জন উপ-কর কমিশনার জানান, কর দিতে মানুষের মধ্যে ভীতির ভাব কাটিয়ে পারস্পরিক সর্ম্পক বাড়িয়ে করবান্ধব পরিবেশ গড়ে তোলার ওপর বর্তমান আঞ্চলিক কর কমিশনার জোর দেন। নতুন করদাতা সৃষ্টি এবং কর আদায় বাড়াতে করদাতাদের উদ্বুদ্ধ করতে প্রতিবছর তিনি একাধিক কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন। যার সুফল মিলেছে আয়কর আদায়ে, বেড়েছে নতুন আয়কর দাতাও।

তবে কর কমিশনার খন্দরকার ফেরদৌস আলমের দাবি- প্রত্যেকের পারস্পরিক সহযোগিতার কারণেই রাজশাহী কর অঞ্চল প্রতিবছর রেকর্ড পরিমাণ আয়কর আদায়ের সফলতা দেখাচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে রাজশাহী কর অঞ্চলে কর্মকর্তার ১৩টি এবং কর্মচারীদের প্রায় ৫০টি পদ শূন্য রয়েছে। ফলে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের তাদের নিজ নিজ দায়িত্বের বাইরে অতিরিক্ত শ্রম দিতে হচ্ছে। বাড়তি এই শ্রমের সুফল পাচ্ছে রাজশাহী কর অঞ্চল।’

এদিকে, চলতি অর্র্থবছরে আয়কর আদায়ে আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত রাজশাহী কর অঞ্চলে মেলার আয়োজন করা হয়েছে। মেলার বিষয়ে জানাতে মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) সকালে কর ভবনের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সেখানে জানানো হয়, ২০১৭ সালের আয়কর মেলায় যেখানে ১৬ হাজার ৫১০টি আয়কর রিটার্ন জমা পড়েছিল, সেখানে গত বছর জমা পড়েছে ২৮ হাজার ৫০৩টি। ২০১৭ সালের মেলা থেকে আয়কর আদায় হয়েছিল ১১ কোটি ৯১ লাখ ৬১ হাজার ৬৪৭ টাকা। গতবছর মেলায় আদায় হয়েছে ১৫ কোটি ৫৩ লাখ ৬ হাজার ৭৪১ টাকা। ২০১৭ সালের মেলায় ৯২১ জন এবং গত বছরের মেলায় ৮৭৫জন ই-টিআইএন গ্রহণ করেছেন। ২০১৭ সালের মেলায় ৪৯ হাজার ৩৫৬ জন সেবাগ্রহণ করেছে। গত বছরের মেলায় সেবাগ্রহণ করেছে ৬৬ হাজার ১৩৬ জন।

SHARE