পশ্চিমবঙ্গ ও ওড়িশায় ‘বুলবুল’ আতঙ্ক

128

গণধ্বনি ডেস্ক : ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ আতঙ্কে ভুগছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও ওডিশার বাসিন্দারা। দেশটির আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, বঙ্গোপসাগরের ওপর ঘনীভূত ঘূর্ণিঝড়টি আরও শক্তিশালী আকার ধারণ করে আছড়ে পড়বে পশ্চিমবঙ্গ এবং ওডিশার উপকূলবর্তী অঞ্চলে।

এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে দুই রাজ্যেরই বেশ কয়েক জায়গায় ভারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। শুক্র ও শনিবার দুই চব্বিশ পরগনা, দুই মেদিনীপুর, নদিয়া, হাওড়া, হুগলি ও কলকাতাতে ভারি বৃষ্টি হতে পারে।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের বরাত দিয়ে ইউএনবির খবরে এতথ্য জানানো হয়।

ভারতের আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, শুক্রবারের মধ্যে ‘বুলবুল’ মারাত্মক ঘূর্ণিঝড়ের আকার ধারণ করে আছড়ে পড়তে পারে। শক্তি সঞ্চয় করতে থাকা ‘বুলবুল’ মোকাবিলায় পশ্চিমবঙ্গ এবং ওড়িশা, দুই রাজ্যের সরকারই সবরকমের প্রস্তুতি জোরদার করছে। পাশাপাশি কেন্দ্রের পক্ষ থেকেও রাজ্যে দুটিকে সবরকমের সহায়তার আশ্বাস দেয়া হয়েছে।

আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর প্রভাবে শুক্রবার থেকে টানা তিন দিন প্রবল বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ এবং ওড়িশার উত্তর ভাগে।

শুক্রবার থেকে আগামী ৩ দিন জেলেদের সমুদ্রে যেতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ওড়িশা, পশ্চিমবঙ্গ এবং আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলোর শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠক করবেন বলে জানা গেছে।

আবহাওয়া দফতর আরও জানিয়েছে, শনিবার অতি ভারী বৃষ্টির সতর্কতা রয়েছে। সমুদ্রে প্রবল জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা রয়েছে। রোববার পর্যন্ত পর্যটকদের সমুদ্রে নামতে নিষেধ করা হয়েছে।

ভুবনেশ্বরের বিশেষ ত্রাণ কমিশনার (এসআরসি) পি কে জেনা বলেছেন, পূর্বাভাস অনুযায়ী ওডিশার উপকূলবর্তী অঞ্চলগুলোতে শুক্রবার থেকে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাতসহ ৭০-৯০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আবহাওয়া পরিস্থিতি বিবেচনা করে শুক্র ও শনিবার পুরী, জগৎসিংহপুর এবং কেন্দ্রপাড়া জেলায় সকল স্কুল ও অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রগুলো বন্ধ রাখার ঘোষণা করা হয়েছে।

SHARE