কৃষক লীগের সভাপতি সমীর, সাধারণ সম্পাদক কুলসুম

100

গণধ্বনি ডেস্ক :দশম জাতীয় সম্মেলনের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন কৃষক লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন যথাক্রমে সমীর চন্দ্র চন্দ ও অ্যাডভোকেট উম্মে কুলসুম স্মৃতি। দু’জনই সদ্য বিদায়ী কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। বুধবার বিকালে ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে তাদের নাম ঘোষণা করা হয়। নাম ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘সভাপতি হিসেবে ১৩ জন এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ১১ জনের নাম প্রস্তাব এসেছিল। এরপর নেত্রীর (প্রধানমন্ত্রী) সঙ্গে আলোচনা করে নতুন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মনোনীত করার সিদ্ধান্ত হয়। নতুন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক আগামী ৭ দিনের মধ্যে কমিটি পূর্ণাঙ্গ করবেন।’

সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর সমীর চন্দ্র বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে গুরুদায়িত্ব আমাকে দিয়েছেন তা অক্ষরে অক্ষ?রে পালন কর?ব। বাংলার কৃষকের মুখে হাসি ফোটাতে কৃষক লীগ কার্যকর ভূমিকা রাখবে। একই সঙ্গে দলের সব কর্মসূচি সফল করতে কৃষক লীগ অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।’

নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক উম্মে কুলসুম বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা আমাদের ওপর আস্থা রেখে যে নতুন দায়িত্ব অর্পণ করেছেন, সেই আস্থার প্রতিদান দিতে চাই। এক্ষেত্রে সবার সহযোগিতা কামনা করছি।’

এদিকে নতুন কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে সদ্য বিদায়ী কমিটির সভাপতি মোতাহার হোসেন মোল্লা বলেন, ‘নেত্রী যে নতুন কমিটি মনোনীত করেছেন, তাদের অভিনন্দন জানাই। তাদের নেতৃত্বে কৃষক লীগ আরও বেশি সংগঠিত হবে বলে আমি বিশ্বাস করি। আমি সব সময় নতুন নেতৃত্বের পাশে থাকব।’

এ সময় অন্যদের মধ্যে আওয়ামী লীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, এবিএম মোজাম্মেল হক, আহমদ হোসেন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, উপ-দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কুমিল্লা সদরের সন্তান কৃষক লীগের নতুন সভাপতি সমীর চন্দ্র চন্দ শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী। ১৯৮৩ সালে তিনি এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সমাজকল্যাণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। এরই ধারাবাহিকতায় ১৯৮৭ সালে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক হন। ১৯৯১ সালে বঙ্গবন্ধু কৃষিবিদ পরিষদের আজীবন সদস্য হন এবং ১৯৯২ সালে পরিষদের কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক নির্বাচিত হন। কৃষিবিদ ইন্সটিটিটের আজীবন সদস্যপদ ও লাভ করেন তিনি। ১৯৯৭ সালে কৃষিবিদ ইন্সটিটিউট ঢাকা মহানগরের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। কৃষক লীগের কৃষি উপকরণ বিষয়ক সম্পাদকও ছিলেন তিনি।

সমীর চন্দ্র চন্দ ২০০২ সালে কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এবং কৃষিবিদ ইন্সটিটিউটের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০১২ সালে (আগের কমিটির) কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং কৃষিবিদ ইন্সটিটিউটের পরপর দু’বার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।

কৃষক লীগে এই প্রথম একজন নারী সাধারণ সম্পাদকের পদ পেয়েছেন। সাধারন সম্পাদক উম্মে কুলসুম স্মৃতি ১৯৬৩ সালের ১ জুন গাইবন্ধা জেলার পলাশবাড়ি উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। দশম জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত মহিলা আসনে সদস্য ছিলেন তিনি। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি গাইবান্ধা-৩ (পলাশবাড়ী-সাদুল্যাপুর) নির্বাচনী এলাকায় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। পেশায় আইনজীবী উম্মে কুলসুম স্মৃতি কৃষক লীগের গত কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। স্মৃতি ১/১১ শেখ হাসিনা মুক্তি আন্দোলনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

এর আগে কৃষক লীগের সম্মেলন হয় ২০১২ সালের ১৯ জুলাই। সেই সম্মেলনে মোতাহার হোসেন মোল্লাকে সভাপতি ও খোন্দকার শামসুল হক রেজাকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। ১৯৭২ সালের ১৯ এপ্রিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষক লীগ প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন ১৫ আগস্টে শহীদ কৃষক নেতা আবদুর রব সেরনিয়াবাত।

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা : সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান নবনির্বাচিত সভাপতি সমীর চন্দ্র চন্দ ও সাধারণ সম্পাদক উম্মে কুলসুম স্মৃতি। এ সময় সংগঠনটির আগের কমিটির নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

SHARE