বাড়তি ঝাঁজ পেঁয়াজের ১৫০ টাকা কেজি

79

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীর বাজারগুলোতে সরবরাহ কমের অজুহাতে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পেয়ে রেকর্ড ১৫০ টাকা কেজিতে পৌঁছেছে। স্মরণকালে এতো বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি হয়নি। গতকাল শুক্রবার রাজশাহী মহানগরীসহ এর উপকন্ঠের বাজারগুলোতে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পেঁয়াজের দাম স্মরণকালের রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। আনেকেই বলছেন, তারা কখনও এতো বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি হতে দেখেননি। সপ্তাহের ব্যবধানে স্থানীয় বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে কেজিতে ২০ থেকে ২৫ টাকা। পেঁয়াজের এই দাম বৃদ্ধির কারণ হিসেবে বিক্রেতারা বরাবরের মত সরবরাহ কমের কথা বলছেন। গতকাল পাইকারি বাজারে প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ১২৫ থেকে ১৩০ টাকা এবং ভারতীয় পেঁয়াজ ১১০ থেকে ১১৫ টাকায় বিক্রি হয়েছে। খুচরা বাজারে বিক্রি হয়েছে দেশি ১৫০ থেকে ১৬০ টাকা এবং ভারতীয় ১২৫ থকে ১৩০ টাকায়। গত সপ্তাহে পাইকারি বাজারে প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ১০০ থেকে ১১০ এবং ভারতীয় ৮৫ থেকে ৯৫ টাকায় বিক্রি হয়েছে। খুচরা বাজারে বিক্রি হয়েছে দেশি ১শ’ থেকে ১২০ এবং ভারতীয় ৯৫ থেকে ১১০ টাকায় বিক্রে হয়েছে। লাগামহীনভাবে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় সাধারণ ক্রেতারা হতাশ। তারা দর নিয়ন্ত্রণে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে রাজশাহী জেলা বাজার কর্মকর্তা মনোয়ার হোসেন বলেন, গতকাল থেকে আমদানি করা পেঁয়াজ বাজারে আসতে শুরু করেছে। এর প্রভাবে পাইকারি বাজারে দাম নিম্নমুখী। ২/১ দিনের মধ্যে খুচরা বাজারে এর প্রভাব পড়বে। এদিকে সরবরাহ বৃদ্ধি পাওয়ায় সবজির দাম কমতে শুরু করেছে। গতকাল প্রতিকেজি সিম ৭০, ফুলকপি ৪০, টমেটো ৮০, গাজর ৯০, পাতাকপি প্রতিটি ২০, প্রতিকেজি কাঁচা মরিচ ৮০, বেগুন ৪০ থেকে ৫০, শশা ৩০ থেকে ৪০, কাকরোল ৪০, আলু ১৬ থেকে ১৮, পটল ৩০, করোলা ৪০, কচু ৪০, পেপে ১৫ থেকে ২০, ঢেড়স ৪০, মিস্টিকুমড়া ২৫, লাউ-কুমড়া প্রতিপিস ২৫, প্রতিহালি কলা ১৬, লেবু ১২ থেকে ১৬ টাকায় বিক্রি হয়েছে। এছাড়া প্রতিকেজি ছোটমাছ ২শ’ থেকে ৫শ’, সিলভার কার্প ১১০ থেকে ১৩০, পাঙ্গাস ১২০ থেকে ১৩০, রুই-কাতলা ১৬০ থেকে ২৮০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। প্রতিকেজি গরুর মাংস ৫২০ থেকে ৫৫০, খাসির মাংস ৬৫০ থেকে ৭৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। গতকাল প্রতিকেজি মুরগি ব্রয়লার ১২০, সোনালী ২২০, দেশি ৩২০ থেকে ৩৩০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। গতকাল প্রতিহালি সাদাডিম ৩২ থেকে ৩৪ এবং লালডিম ৩৪ থেকে ৩৬ টাকায় বিক্রি হয়েছে। এদিকে গতকাল খুচরা বাজারে প্রতিকেজি পোলাও এর চাল রকম ভেদে ৭০ থেকে ১শ’ টাকায় বিক্রি হয়েছে। গুটিস্বর্ণা ২৮/৩০, পারিজা/ লালস্বর্ণা ৩২/৩৩, আটাশ ৩৪ থেকে ৪২, মিনিকেট ৪৫ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। মুগ ডাল বড়দানা ৬০, ছোটদানা ১২০, মসুর ডাল বড়দানা ৫৭, ছোট দানা ১০৮, ছোলার ডাল ৯০, এংকর ডাল ৪০, খেসারি ডাল ৬০, আটা খোলা ২৮ এবং প্যাকেট ৩২/৩৩ টাকায় বিক্রি হয়েছে, প্রতিলিটার সয়াবিন তেল খোলা ৭৮, বোতল ৯৫ থেকে ১০৫ টাকা, চিনি খোলা ৫৮, প্যাকেট ৬০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

SHARE