রাজশাহীর নাটকীয় জয়

145

গণধ্বনি ডেস্ক : কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শেষ দিনের রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে ম্যাচের রং পালটাল বার বার। ছোটো লক্ষ্য তাড়ায় পথ হারানো রংপুরকে লড়াইয়ে রেখেছিলেন নাঈম ইসলাম। অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যানের প্রতিরোধ ভেঙে রাজশাহীকে দারুণ এক জয় এনে দিলেন দুই বাঁ-হাতি স্পিনার সানজামুল ইসলাম ও সাকলাইন সজীব।

১১৮ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ১১১ রানে থামে রংপুর। সমান পাঁচটি করে উইকেট নেন সানজামুল ও সাকলাইন। বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা জয় পেয়েছে ছয় রানের ব্যবধানে।

জাতীয় লিগের প্রথম স্তরের তৃতীয় রাউন্ডে ৬ উইকেটে ১২৯ রান নিয়ে শেষ দিন শুরু করে রাজশাহী। ১০৯ বলে ২৪ রান করা মুক্তার আলিকে ফিরিয়ে রংপুরকে দিনের প্রথম উইকেট এনে দেন নাসির হোসেন। সানজামুলের ৩৬ ও দেলোয়ার হোসেনের ১৮ রানে ভর করে রংপুরকে ১১৮ রানের লক্ষ্য দেয় রাজশাহী।

৩০ রান খরচায় ৩ উইকেট নিয়ে রংপুরের সেরা বোলার তানবীর হায়দার। লক্ষ্য তাড়ায় ২১ রান তুলতেই ফিরে যান রংপুরের টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যান। চতুর্থ ও পঞ্চম উইকেটে সোহরাওয়ার্দী শুভ ও আরিফুল ইসলামকে নিয়ে দুটি কার্যকর জুটিতে দলকে লড়াইয়ে রাখেন নাঈম। তিন রানের মধ্যে আরিফুল, নাসির হোসেন ও ধীমান ঘোষকে তুলে নিয়ে লড়াই জমিয়ে দেন রাজশাহীর দুই স্পিনার।

৮৮ রানে ৭ উইকেট হারানোর পর অষ্টম উইকেটে অধিনায়ক সাজেদুলকে নিয়ে আবারও প্রতিরোধ গড়েন নাঈম। ১৭.৩ ওভারে ২১ রান তুলে রংপুরকে জয়ের খুব কাছে নিয়ে যায় এই জুটি। তবে দলীয় ১০৯ রানে সাকলাইনের বলে নাঈম আউট হলে পথ হারায় তারা। ১৩৮ বলে ৩৬ রান করেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। পরের ওভারে সাজেদুল ও মুকিদুলকে তুলে নিয়ে দলকে দারুণ এক জয় এনে দেন ম্যাচ সেরা সানজামুল।

এদিকে, জাতীয় লিগের এবারের আসরে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ম্যাচে জোড়া সেঞ্চুরি করেছেন এনামুল হক। তৃতীয় রাউন্ডে ঢাকার বিপক্ষে দুই ইনিংসেই সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন খুলনার ডানহাতি এই ওপেনার। কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার দলের দ্বিতীয় ইনিংসে ১৫১ রানে অপরাজিত থেকে যান এনামুল। ৩ উইকেট হারিয়ে ৩০১ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে খুলনা। এর আগে প্রথম ইনিংসে এনামুল করেছিলেন ১২৬ রান।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে এনামুলের চেয়ে বেশি সেঞ্চুরি আছে শুধু তুষার ইমরান (৩১) ও নাঈম ইসলামের (২৬)। সমান ২০টি করে সেঞ্চুরি আছে আরো তিন জনের। তারা হলেন অলক কাপালী, মুমিনুল হক ও মোহাম্মদ আশরাফুল।

SHARE