অলিম্পিয়াডে সুযোগ পেলেন ৮২ বছরের রাণী হামিদ

অনলাইন ডেস্ক : সেপ্টেম্বরে হাঙেরীর বুদাপেস্টে দাবা অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদশে ওপেন ও মহিলা দুই বিভাগেই অংশগ্রহণ করবে। সদ্য সমাপ্ত মহিলা দাবার শীর্ষ পাঁচ দাবাড়ু বুদাপেস্ট অলিম্পিয়াডের জন্য নির্বাচিত। কিংবদন্তী দাবাড়ু রাণী হামিদ জাতীয় দাবায় ষষ্ঠ হওয়ায় অলিম্পিয়াড দলে ছিলেন না। দ্বিতীয় স্থানধারী মহিলা ফিদে মাস্টার শারমীন সুলতানা শিরিন পারিবারিক কারণে নাম প্রত্যাহার করায় রাণী হামিদ আরো একটি অলিম্পিয়াড খেলার সুযোগ পাচ্ছেন।

দাবা ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শাহাবুদ্দিন শামীম অলিম্পিয়াডে নারী দাবাড়ুদের সম্পর্কে বলেন, ‘শিরিনের বাচ্চার বয়স এক বছরের কম। এই পরিস্থিতিতে সে যেতে ইচ্ছুক নয়। তাই ষষ্ঠ স্থানে থাকা রাণী হামিদের অলিম্পিয়াডের রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করা হয়েছে।’ মহিলা দাবায় ষষ্ঠ হওয়ার পর অলিম্পিয়াড খেলার ইচ্ছে ছেড়েই দিয়েছিলেন ৮২ বছর বয়সী মহিলা আন্তর্জাতিক মাস্টার রাণী হামিদ। আবার অলিম্পিয়াডে যাওয়ার সুযোগ পেয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত এই কিংবদন্ত দাবাড়ু, ‘শেষ মুহূর্তে অবশ্য অলিম্পিয়াডে যেতে পারছি। সব দেশের দাবাড়ুদের সঙ্গে দেখা হয়। দুই বছর পর অলিম্পিয়াডে যাওয়ার পারফরম্যান্স ও শারীরিক অবস্থা থাকবে কি না জানি না। তাই এই অলিম্পিয়াডেই সবার কাছ থেকে বিদায় নিয়ে আসব।’

আরও পড়ুনঃ   পাকিস্তানে যেতে না চাওয়া ভারতকে বাদ দিয়েই হবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি

মহিলা দাবায় এক সময় রাণী হামিদের শ্রেষ্ঠত্ব ছিল। বয়সের ভারে এখন পারফরম্যান্স পড়তির দিকে। এটা মেনেই নিয়েছেন তিনি, ‘প্রতিপক্ষের ভালো খেলার চেয়ে আমি নিজেই বেশি ভুল করি। পঞ্চম স্থানের জন্য প্লে অফ ম্যাচে আমি তিনটি ভুল করেছি। নতুন মেয়েরা উঠে আসছে। তারাই সামনে জাতীয় পর্যায়ে ভালো করবে ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবে এটাই স্বাভাবিক।’ জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপ শেষে ওয়ালিজা ও রানী হামিদ যুগ্মভাবে পঞ্চম ছিলেন। প্লে অফ খেলায় ওয়ালিজা জিতে অলিম্পিয়াড নিশ্চিত করেন।

আরও পড়ুনঃ   বাংলাদেশের ব্যর্থতা ব্যাখ্যায় ৩০ মিনিট লাগবে পাপনের

২০২২ অলিম্পিয়াডে ওপেন বিভাগে গ্র্যান্ডমাস্টার জিয়াউর রহমান ও তার ছেলে তাহসনি তাজওয়ার জিয়া খেলেছিলেন। বাবা-পুত্রের পর এবার ওয়ালিজা-ওয়াদিফা দুই বোন অলিম্পিয়াড খেলবেন। দুই বোনের সঙ্গে এই অলিম্পিয়াডে নারী দলে আছেন জাতীয় মহিলা দাবায় চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ নৌবাহিনীর মহিলা ফিদে মাস্টার নোশিন আঞ্জুম , বাংলাদেশ পুলিশের মহিলা ক্যান্ডিডেট মাস্টার নুশরাত জাহান আলো ও কিংবদন্তী দাবাড়ু রানী হামিদ।

ওপেন বিভাগে বাংলাদেশ দলে সাধারণত পুরুষরাই অংশগ্রহণ করেন। চলমান জাতীয় দাবায় মনন রেজা নীড় চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় তার অংশগ্রহণ নিশ্চিত। বাকি চার জন কারা হবেন সেটা শেষ রাউন্ডের পর নিশ্চিত হবে।