নগরীতে ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেপ্তার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী মহানগরীর এয়ারপোর্ট থানার মাঝিগ্রাম এলাকার মানসিক প্রতিবন্ধী এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষককে গ্রেপ্তার করেছে আরএমপি’র এয়ারপোর্ট থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃত আসামি মো: বারী (৫০) রাজশাহী মহানগরীর এয়ারপোর্ট থানার মাঝিগ্রামের মো: ওমর আলীর ছেলে।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, রাজশাহী মহানগরীর এয়ারপোর্ট থানার মাঝিগ্রাম এলাকার মানসিক প্রতিবন্ধী এক নারী তার বোনের বাড়িতে একা থাকতেন। এই সুযোগে আসামি বারী ঐ নারীকে বিভিন্নসময় প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করত। গত ১ ডিসেম্বর ২০২৩ তারিখ রাত সোয়া ১১ টায় বারী একা থাকার সুযোগে ঐ নারীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এসময় ঐ নারীর চিৎকারে আসামি বারী পালিয়ে যায়। বিষয়টি তার আত্মীয়-স্বজন লোক লজ্জার ভয়ে বিষয়টি গোপন রাখে। এছাড়াও আসামির বারী ঐ নারীকে প্রায় সময় ধর্ষণ করত। গত ৩ জুন ২০২৪ ঐ নারী অসুস্থ হয়ে পড়লে তার ভাগ্নি তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। চিকিৎসক পরীক্ষা করে জানায় ঐ নারী ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। বর্তমানে ঐ নারী রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ঐ নারীর ভাগ্নির উক্ত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আরএমপি’র এয়ারপোর্ট থানায় একটি মামলা রুজু হয়।

আরও পড়ুনঃ   ফেসবুক লাইভে কষ্টের কথা জানিয়ে গৃহবধূর আত্মহত্যা

আরএমপি’র শাহমখদুম বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মো: নূর আলম সিদ্দিকীর তত্ত্বাবধানে এয়ারপোর্ট থানা পুলিশের একটি টিম আসামি বারীকে দ্রুত গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করেন।

পরবর্তীতে এয়ারপোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ মো: মনিরুজ্জামানের দিকনির্দেশনায় এসআই মো: তৌফিকুর রহমান তৌফিক ও তার টিম মামলার রুজুর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গতকাল ৫ জুন দিবাগত রাত সোয়া ১২ টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে আসামি বারীকে তার বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করেন।

আরও পড়ুনঃ   নগরীতে মাদকদ্রব্য উদ্ধার ও গ্রেপ্তার ১২

জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃত আসামি ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। তাকে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।