হামাস রাজি হলে ইসরায়েল যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হবে: যুক্তরাষ্ট্র

অনলাইন ডেস্ক : হামাস যদি যুক্তরাষ্ট্রের দেওয়া যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে রাজি হয় তাহলে ইসরায়েলও রাজি হবে। আজ রোববার (২ জুন) এমন দাবি করেছেন হোয়াইট হাউজের জাতীয় নিরাপত্তা পরামর্শক জন কিরবি।

গত শুক্রবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তিন ধাপের একটি যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব উত্থাপন করেন। এতে গাজায় সব ধরনের হামলা বন্ধ এবং সব জিম্মির মুক্তির কথা বলা হয়।

এ ব্যাপারে কিরবি বলেছেন, “(বাইডেনের ঘোষিত) প্রস্তাবটি ছিল ইসরায়েলের প্রস্তাব। আমাদের আশা— ইসরায়েলের এই প্রস্তাবটি যেটি হামাসের কাছে পাঠানো হয়েছে— তারা যদি রাজি হয় তাহলে ইসরায়েল বলবে আমরাও রাজি আছি।”

আরও পড়ুনঃ   ট্রাম্পের ‘মানসিক সুস্থতা’ নিয়ে রসিকতা বাইডেনের

বাইডেন প্রস্তাব দেওয়ার পরপরই হামাস জানায় তারা এই প্রস্তাবে ইতিবাচক আছে। তবে দখলদার ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু জানিয়েছেন, হামাসকে নির্মূল না করা পর্যন্ত তারা গাজায় যুদ্ধ বন্ধ করবেন না।

যদিও ইসরায়েলি এক কর্মকর্তা মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিবিএস নিউজকে জানিয়েছেন, বাইডেন যে প্রস্তাব দিয়েছেন সেটি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু এবং যুদ্ধকালীন মন্ত্রীসভা অনুমোদন দিয়েছে। তবে গাজা থেকে সব জিম্মিকে মুক্ত এবং হামাসের সামরিক ও প্রশাসনিক কাঠামো ধ্বংস করার আগে নেতানিয়াহু কোনো স্থায়ী যুদ্ধবিরতিতে রাজি হবেন না বলে জানিয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ   ট্রাম্পকে গুলি করা থমাস ছিলেন শান্ত স্বভাবের

প্রায় ৮ মাস ধরে হামাস ও ইসরায়েলের মধ্যে চলা এ যুদ্ধে এখন পর্যন্ত ৩৬ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। যারা বেঁচে আছেন তারা দুর্ভিক্ষসহ অন্যান্য সমস্যায় পড়েছেন। এ কারণে এখন যুদ্ধবিরতির প্রতি জোর দিচ্ছে বিশ্বের সব দেশ।-সূত্র: আলজাজিরা