উপজেলা নির্বাচন, তৃতীয় ধাপ : এক লাখ ৪১ হাজার আনসার মোতায়েন

অনলাইন ডেস্ক : আগামীকাল বুধবার (২৯ মে) ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদের তৃতীয় ধাপের নির্বাচনে এক লাখ ৪০ হাজার ৮৬১ জন সদস্য মোতায়েন করেছে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী।

মঙ্গলবার (২৮ মে) আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সহকারী পরিচালক (গণসংযোগ কর্মকর্তা) রুবেল হোসাইনের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

তৃতীয় ধাপে ঘূর্ণিঝড় রেমাল ও অন্যান্য কারণে মোট ২২টি উপজেলায় নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। ফলে চলতি ধাপে দেশের ৯০টি উপজেলায় ৮ হাজার ৫৫টি ভোটকেন্দ্রে নির্বাচন হতে যাচ্ছে। আর প্রতিটি নির্বাচন কেন্দ্রের নিরাপত্তায় মোট ১৩ জন বা ততোধিক আনসার ও ভিডিপি সদস্য গতকাল সোমবার থেকে দায়িত্ব পালন করছেন। তাদের মধ্যে একজন প্লাটুন কমান্ডার (পিসি) ও দুইজন সহকারী প্লাটুন কমান্ডারের (এপিসি) নেতৃত্বে চারজন পুরুষ ও চারজন মহিলা আনসার-ভিডিপি সদস্য রয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ   দেশের সার্বিক উন্নয়নে নারী পুরুষের সমান অংশগ্রহণ প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী

কোনো কেন্দ্রে বুথ সংখ্যা ৬টির বেশি হলে বুথ প্রতি অতিরিক্ত আরও একজন করে আনসার-ভিডিপি সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। তিনজন পিসি ও এপিসি অস্ত্রসহ এবং আনসার-ভিডিপি সদস্যরা অস্ত্রবিহীন ভোটকেন্দ্রের নিরাপত্তা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত থাকবেন।

নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা মোতাবেক ভোটকেন্দ্রের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা ও ব্যালট বাক্সের নিরাপত্তা রক্ষায় এক লাখ ৩৫ হাজার ৫৫৬ জন সাধারণ আনসার ও ভিডিপি সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। তাদের পাশাপাশি ৫৯ প্লাটুন (১৭৪২ জন) আনসার ব্যাটালিয়ন সদস্য জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশনা মোতাবেক দায়িত্ব পালনের জন্য স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে মোতায়েন রয়েছেন। স্ট্রাইকিং ফোর্সে দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে আনসার ব্যাটালিয়ন সদস্যরা ন্যূনতম সেকশন (প্রতি সেকশন ১০ জন করে) ফরমেশনে দায়িত্ব পালন করবেন।

আরও পড়ুনঃ   ঢাকা সেনানিবাসে সেনাপ্রাঙ্গণ ভবন উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রীর

তাছাড়া পুলিশের মোবাইল টিম বা স্ট্রাইকিং টিমের সঙ্গে যুক্ত হয়ে কাজ করছেন প্রায় ৬১ প্লাটুন (১৮৪০ জন) সশস্ত্র আনসার ভিডিপি সদস্য। তাদের তদারকির জন্য কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ আরও এক হাজার ৭২৩ জন সদস্য মাঠ পর্যায়ে দায়িত্ব পালন করছেন। তারা সবাই ২৭ মে থেকে ৩১ মে পর্যন্ত মোট পাঁচদিনের জন্য মোতায়েন থাকবেন।

উল্লেখ্য, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করতে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর পাঁচ লাখ ১৭ হাজার ১৪৩ জন সদস্য নিয়োজিত ছিলেন।