বাগমারায় অবৈধ ভাবে পুকুর খনন করতে আসা ভেকু উঠিয়ে দিলো এলাকাবাসী

হেলাল উদ্দিন বাগমারা : রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার হামিরকুৎসা ইউনিয়নের কোনাবাড়িয়া মৌজায় ফসলী জমিতে অবৈধ ভাবে পুকুর কনন করতে আসা ভেকু মেশিন উঠিয়ে দিয়েছে এলাকাবাসী। বৃহস্পতিবার (২৩মে) বেলা এগারোটার দিকে তালঘরিয়া, কোনাবাড়িয়া ও রায়াঁপুর গ্রামের জমি মালিকরা ও এলাকাবাসী একত্রিত হয়ে পুকুর খননে বাধা দেয়। স্থানীয়দের তোপের মুখে পরিস্থিতি বেগতিক দেখে পুকুর খননের উদ্যোক্তা সোহাগ ও আফজাল ভেকু মেশিন উঠিয়ে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে সোহাগ জানান, আমি আমার জমিতে একটি কুপ খননের জন্য ভেকু এনেছিলাম। যেহেতু লোকজন চাচ্ছেনা সেজন্য আমি ভেকু উঠিয়ে নিয়ে যাবো।

আরও পড়ুনঃ   বগুড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় শিশুসহ দুইজন নিহত

জানা যায়, হামিরকুৎসা ইউনিয়নের রায়াঁপুর ও তালঘরিয়া গ্রামের মাঝখানে ফসলী জমিতে কয়েক মাস আগে কতিপয় ব্যাক্তি প্রভাব খাটিয়ে অবৈধ ভাবে পুকুর খননের জন্য রাতের আঁধারে ভেকু মেশিন জমিতে নিয়ে আসে। খবর পেয়ে আশে-পাশের কয়েক গ্রামের জমি মালিকরা এসে বাধাঁ দেয়। এক পর্যায়ে যোগীপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। ভেকু মেশিন উঠিয়ে দেয়া হয় জমি থেকে। আবারও বুধবার গভীর রাতে সোহাগের নেতৃত্বে কতিপয় প্রভাবশালী জোর পূর্বক পুকুর খননের জন্য ভেকু নিয়ে আসে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে জমি মালিকরা একত্রিত হয়ে পুকুর খনন কাজে বাধা প্রদান করে এবং রাস্তায় সারিবদ্ধ ভাবে দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ জানায়।

আরও পড়ুনঃ   অভিজ্ঞতা নিয়ে রাজশাহী সিটি পরিদর্শনে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলরগণ

তালঘরিয়া গ্রামের মোতালেব, ইব্রাহিম, ওহাব, রফাতুল্লাহ, লিটন সরদার, এনামুল, ওমর আলী, ওয়াজেদ আলী, শামীম, আমিনুল, আহসান, কাশেম, জলিল, কামাল হোসেনসহ শতাধিক জমি মালিকরা জানান, আমাদের শেষ অবলম্বনটুকু এখানে রয়েছ্ সামান্য জমি থেকেই আমরা ফসল উৎপাদন করে জীবীকা নির্বাহ করি। ভবিষ্যতে যেন কেহ অবৈধ ভাবে প্রভাব খাটিয়ে ফসলী জমিতে পুকুর খনন করতে না পারে সেজন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছি।