দুর্গাপুরে রিটার্নিং ওয়াল নির্মাণে দুই ইউপি সদস্যের অভিনব প্রতারণা

স্টাফ রিপোর্টার, দুর্গাপুর: রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার দেলুয়াবাড়ী ইউনিয়নের দুই ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে রিটার্নিং ওয়াল নির্মাণে অভিনব প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে। অনিয়মের প্রতিবাদ জানিয়ে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিয়েছে এলাকাবাসী।

অভিযোগ পেয়ে নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করে পুণরায় সিডিউল অনুযায়ী কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা।

অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে দেখা গেছে, কাবিখা ও কাবিটা প্রকল্পের আওতায় দেলুয়াবাড়ি ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ড ও ৬ নং ওয়ার্ডে রিটার্নিং ওয়াল নির্মাণের কাজ দেয়া হয় ইউপি সদস্য তাজুল ইসলাম ও নারী ইউপি সদস্য ছবেদা বেগমকে। দুটি কাজে এক লাখ ৫৭ হাজার টাকা করে বরাদ্দ দেয়া হয়।

সিডিউল অনুযায়ী পিলারে উচ্চতা ৭ ফিট করার কথা থাকলেও তা করা হয়নি। ১০ ও ১২ মিলি রড ব্যবহারের কথা থাকলেও ৮ মিলি রড ব্যবহার করা হয়েছে। প্রতিটি পিলারে ৪ টা রড দেয়ার কথা থাকলেও দুটো রড দেয়া হয়েছে। ৮ টা রিং পরানোর কথা থাকলেও ৩/৪ টা রিং দেয়া হয়েছে। ইটও ব্যবহার করা হয়েছে নিম্নমানের। সিমেন্টের পরিমাণও কম দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ   রাবিতে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ: চার নেতা বহিষ্কার

এদিকে, অভিনব প্রতারণার মাধ্যমে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করে রিটার্নিং ওয়াল নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিয়েছে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। খবর পেয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার দপ্তর থেকে লোক পাঠিয়ে কাজ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

একটি সূত্র জানায়, অভিযুক্ত দুই ইউপি সদস্যকে বাঁচাতে আমগ্রাম ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আবুল বাশার জোর তদবির চালাচ্ছেন। পিআইও অফিসের একজন কর্মচারীও জড়িত রয়েছেন বলে সূত্রটি জানিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ   স্বামীর ধূমপান অধূমপায়ী স্ত্রীর জন্য প্রথম নারী নির্যাতন

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মাহবুবা আক্তার জানান, অভিযুক্ত দুই ইউপি সদস্যকে ডেকে মুচলেকা নেয়া হয়েছে। পুনরায় সিডিউল অনুযায়ী কাজ করবে মর্মে তারা মুচলেকা দিয়েছে। ফের কাজে কোন অনিয়ম হলে বিল আটকে দেয়া হবে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে, অভিযুক্ত নারী ইউপি সদস্য ছবেদা বেগমের সাথে কথা বলা হলে সব দোষ তিনি মিস্ত্রির উপরে চাপিয়ে দিয়ে নিজে বাঁচার চেষ্টা করেছেন। অপরদিকে ইউপি সদস্য তাজুল ইসলামের সাথে নানাভাবে কথা বলার চেষ্টা করা হলেও কথা বলা সম্ভব হয়নি।