উপজেলা পরিষদ নির্বাচন,দুর্গাপুরে ১২ প্রার্থীরই মনোনয়নপত্র বৈধ

স্টাফ রিপোর্টার, দুর্গাপুর: রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেয়া
চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও সংরক্ষিত নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোট ১২ জন প্রার্থীরই মনোনয়নপত্র বৈধ করেছেন নির্বাচন কমিশন।

মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে রিটার্নিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কল্যাণ চৌধুরী মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেন।
ইসি’র সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এবার সরাসরি মনোনয়নপত্র দাখিলের সুযোগ না থাকায় অনলাইনে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন প্রার্থীরা। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিতে চেয়ারম্যান পদে ৩ জন, ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে ৬ জন ও ভাইস চেয়ারম্যান (নারী) পদে ৩ জন মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন।

চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ সরদার এবং দুর্গাপুর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক শরিফুজ্জামান শরিফ।

আরও পড়ুনঃ   স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য সিঙ্গাপুর গেলেন ওবায়দুল কাদের

ভাইস চেয়ারম্যান পদে (পূরুষ) বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মোতালেব মোল্লা, তার ছেলে শ্রমিক লীগ নেতা শামীম ফিরোজ, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের মন্ডল, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল হক, মোসাকাব্বের সরকার জিন্নাহ ও হাসেম আলী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

এছাড়াও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান নারী ভাইস চেয়ারম্যান বানেছা বেগম, সাবেক ইউপি সদস্য কোহিনুর বেগম ও যুবলীগ নেত্রী শারমিন পলি মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।
জানা যায়, সকাল ১০টায় মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইকালে ১১ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়। এছাড়া মামলা সংক্রান্ত বিষয়ে তথ্য বিভ্রাটের কারণে চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল মজিদ সরদারের মনোনয়নপত্র স্থগিত করা হয়। তবে দুপুর দেড়টার দিকে তার মনোনয়নপত্র ফের বৈধ ঘোষণা করা হয়।

আরও পড়ুনঃ   রুয়েটে গবেষণা প্রকল্পের চুড়ান্ত প্রতিবেদন উপস্থাপন বিষয়ক সেমিনার

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার স্বীকৃতি প্রামাণিক জানান, মনোনয়নপত্র বাছাইয়ে রিটার্নিং অফিসারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল দায়ের ২৪ থেকে ২৬ এপ্রিল। আপিল নিষ্পত্তি ২৭ থেকে ২৯ এপ্রিল। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ৩০ এপ্রিল। প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে ২ মে এবং নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২১ মে।