গুয়াতেমালায় শক্তিশালী ভূমিকম্প

  • আপডেট সময় : ০১:১৬:৩৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৪ ১ বার পড়া হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক : মধ্য-আমেরিকার দেশ গুয়াতেমালায় শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। স্থানীয় সময় শুক্রবার গভীর রাতে ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছে দেশটির দক্ষিণাঞ্চল। এতে বেশ কিছু ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতের কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি।

মার্কিন ‍ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা ইউএসজিএস বলছে, গুয়াতেমালার দক্ষিণাঞ্চলে আঘাত হানা ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল রিখটার স্কেলে ৬ দশমিক ১।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা বলছে, ভূমিকম্পের সময় দেশটির শত শত মানুষ তাদের বাড়িঘর ছেড়ে রাস্তায় বেরিয়ে আসেন। ভূমিকম্পে কিছু ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

প্রতিবেশী দেশ এল সালভাদরেও এই ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। তবে মধ্যরাতের পরপরই দেশটিতে অনুভূত ভূমিকম্পে তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতের তথ্য পাওয়া যায়নি। উভয় দেশে ভূমিকম্প আঘাত হানার সময় লোকজন ঘুমিয়ে ছিলেন।

এল সালভাদরের কর্মকর্তারা ভূমিকম্পটিকে ‘‘শক্তিশালী’’ বলে অভিহিত করেছেন। তারা বলেছেন, ভূমিকম্প পরবর্তী পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন তারা।

ইউএসজিএস বলছে, ভূমিকম্পটির কেন্দ্রস্থল ছিল রাজধানী গুয়াতেমালা সিটি থেকে প্রায় ১০০ কিলোমিটার দক্ষিণে ট্যাক্সিস্কো শহরের কাছে।

ওই এলাকায় ভূমিকম্পের সতর্ক সংকেত বাজিয়ে বাসিন্দাদের সতর্ক করে দেওয়া হয়। পরে কিছু বাসিন্দা আতঙ্কিত হয়ে তাদের বাড়িঘর ছেড়ে রাস্তায় বেরিয়ে আসেন।

ভূপৃষ্ঠ থেকে ১০৮ কিলোমিটার গভীরে ভূমিকম্পের উৎপত্তি হয়েছে বলে জানিয়েছে মার্কিন এই ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা।

গুয়াতেমালার জরুরি পরিষেবা সংস্থা কনরেড বলেছে, ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থলের উত্তর-পশ্চিমের সান পাবলো জোকোপিলাস শহরের একটি গির্জার সম্মুখভাগের কিছু অংশ ধসে গেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

গুয়াতেমালায় শক্তিশালী ভূমিকম্প

আপডেট সময় : ০১:১৬:৩৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৪

অনলাইন ডেস্ক : মধ্য-আমেরিকার দেশ গুয়াতেমালায় শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। স্থানীয় সময় শুক্রবার গভীর রাতে ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছে দেশটির দক্ষিণাঞ্চল। এতে বেশ কিছু ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতের কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি।

মার্কিন ‍ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা ইউএসজিএস বলছে, গুয়াতেমালার দক্ষিণাঞ্চলে আঘাত হানা ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল রিখটার স্কেলে ৬ দশমিক ১।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা বলছে, ভূমিকম্পের সময় দেশটির শত শত মানুষ তাদের বাড়িঘর ছেড়ে রাস্তায় বেরিয়ে আসেন। ভূমিকম্পে কিছু ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

প্রতিবেশী দেশ এল সালভাদরেও এই ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। তবে মধ্যরাতের পরপরই দেশটিতে অনুভূত ভূমিকম্পে তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতের তথ্য পাওয়া যায়নি। উভয় দেশে ভূমিকম্প আঘাত হানার সময় লোকজন ঘুমিয়ে ছিলেন।

এল সালভাদরের কর্মকর্তারা ভূমিকম্পটিকে ‘‘শক্তিশালী’’ বলে অভিহিত করেছেন। তারা বলেছেন, ভূমিকম্প পরবর্তী পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন তারা।

ইউএসজিএস বলছে, ভূমিকম্পটির কেন্দ্রস্থল ছিল রাজধানী গুয়াতেমালা সিটি থেকে প্রায় ১০০ কিলোমিটার দক্ষিণে ট্যাক্সিস্কো শহরের কাছে।

ওই এলাকায় ভূমিকম্পের সতর্ক সংকেত বাজিয়ে বাসিন্দাদের সতর্ক করে দেওয়া হয়। পরে কিছু বাসিন্দা আতঙ্কিত হয়ে তাদের বাড়িঘর ছেড়ে রাস্তায় বেরিয়ে আসেন।

ভূপৃষ্ঠ থেকে ১০৮ কিলোমিটার গভীরে ভূমিকম্পের উৎপত্তি হয়েছে বলে জানিয়েছে মার্কিন এই ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা।

গুয়াতেমালার জরুরি পরিষেবা সংস্থা কনরেড বলেছে, ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থলের উত্তর-পশ্চিমের সান পাবলো জোকোপিলাস শহরের একটি গির্জার সম্মুখভাগের কিছু অংশ ধসে গেছে।