পাবনায় মা ও শিশু সন্তানকে শ্বাসরোধে হত্যা

  • আপডেট সময় : ০১:০৮:১৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২৪ ৩ বার পড়া হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক :পাবনার চাটমোহরে মা ও তার শিশু সন্তানকে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।
শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) বেলা ১১:৩০ টার দিকে ফৈলজানা ইউনিয়নের দিঘুলিয়া গ্রামে তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতের কোনো এক সময়ে মা-ছেলেকে হত্যা করা হতে পারে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

নিহতরা হলেন লাবনী খাতুন (৩৫) ও রিয়াদ হোসেন (৮) দিঘুলিয়া গ্রামের আব্দুর রশিদের স্ত্রী-সন্তান। রশিদ দীর্ঘদিন ধরে মালয়েশিয়ায় থাকেন।
স্থানীয়দের উদ্ধৃতি দিয়ে ফৈলজানা ইউপির চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান জানান, সকালে মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়া হয়। তবে কারো সঙ্গে শত্রুতা ছিল না তাদের। কে বা কারা তাদের এভাবে হত্যা করা হয়েছে সেটা প্রশাসন ভালো বলতে পারবেন।

স্থানীয় মেম্বার মো. নান্নু বলেন, ওই বাড়িতে ওই নারী, তার শিশু পুত্র ও শাশুড়ি বাস করতেন। বাড়ির ভবন তৈরি কাজ চলছে। ধারণা করা হচ্ছে- কেউ হয়তো টাকা পয়সা চুরি বা ডাকাতি করতে গিয়ে এই ধরনের ঘটনা ঘটাতে পারে। নারীর মৃতদেহ রান্না ঘরে পড়েছিল এবং ছেলেটির লাশ পাশের এক গােেছ ঝুলছিল।

এ বিষয়ে চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সেলিম রেজা বলেন, মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। এ বিষয়ে পরে বিস্তারিত বলা যাবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

পাবনায় মা ও শিশু সন্তানকে শ্বাসরোধে হত্যা

আপডেট সময় : ০১:০৮:১৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২৪

অনলাইন ডেস্ক :পাবনার চাটমোহরে মা ও তার শিশু সন্তানকে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।
শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) বেলা ১১:৩০ টার দিকে ফৈলজানা ইউনিয়নের দিঘুলিয়া গ্রামে তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতের কোনো এক সময়ে মা-ছেলেকে হত্যা করা হতে পারে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

নিহতরা হলেন লাবনী খাতুন (৩৫) ও রিয়াদ হোসেন (৮) দিঘুলিয়া গ্রামের আব্দুর রশিদের স্ত্রী-সন্তান। রশিদ দীর্ঘদিন ধরে মালয়েশিয়ায় থাকেন।
স্থানীয়দের উদ্ধৃতি দিয়ে ফৈলজানা ইউপির চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান জানান, সকালে মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়া হয়। তবে কারো সঙ্গে শত্রুতা ছিল না তাদের। কে বা কারা তাদের এভাবে হত্যা করা হয়েছে সেটা প্রশাসন ভালো বলতে পারবেন।

স্থানীয় মেম্বার মো. নান্নু বলেন, ওই বাড়িতে ওই নারী, তার শিশু পুত্র ও শাশুড়ি বাস করতেন। বাড়ির ভবন তৈরি কাজ চলছে। ধারণা করা হচ্ছে- কেউ হয়তো টাকা পয়সা চুরি বা ডাকাতি করতে গিয়ে এই ধরনের ঘটনা ঘটাতে পারে। নারীর মৃতদেহ রান্না ঘরে পড়েছিল এবং ছেলেটির লাশ পাশের এক গােেছ ঝুলছিল।

এ বিষয়ে চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সেলিম রেজা বলেন, মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। এ বিষয়ে পরে বিস্তারিত বলা যাবে।