গুয়াতেমালায় এক পেশাদার খুনির ৮০৮ বছর জেল

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:২১:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২৪ ৪ বার পড়া হয়েছে
আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

অনলাইন ডেস্ক: গুয়াতেমালার একটি আদালত ২০০৮ সালে ১৫ জন নিকারাগুয়ান এবং এক ডাচ নাগরিককে হত্যার দায়ে সোমবার আসামি এক মাদক স¤্রাটকে ৮০৮ বছরের কারাদন্ড দিয়েছেন।
হত্যাকান্ডে অংশ নেওয়া আসামি রিগোবার্তো দানিলো মোরালেসের বিরুদ্ধে এই সাজা ঘোষণা করেছেন আদালত।
২০১৬ সালে আরেকজন কথিত মাদক স¤্রাট মারভিন মন্টিয়েল মারিনকেও ধারাবাহিক খুনের দায়ে দীর্ঘ কারাদন্ডের সাজা দেয়া হয়।
আদালত বলেছেন, মোরালেসকে প্রতিটি হত্যার জন্য ৫০ বছর এবং অপরাধী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য আরও আট বছরের কারাদন্ড দেয়া হয়েছে।
দীর্ঘ সাজা সত্ত্বেও গুয়াতেমালার আইন অনুযায়ী একজন দন্ডপ্রাপ্ত আসামীকে মূলত ৫০ বছরের বেশি কারাভোগ করতে হয় না।
৩৭ বছর বয়সী মোরালেস ১৩ বছর পলাতক থাকার পর ২০২২ সালে গ্রেপ্তার হন। সেপ্টেম্বরে তার বিচার শুরু হয়।
প্রসিকিউটরা বলেছেন, পৃথক আরেকটি ঘটনায় ২০০৮ সালে গুয়াতেমালায় একটি বাস নিকারাগুয়ায় ঢুকে পড়ে। বাসের যাত্রীরা মাদক পাচারকারী এবং তাদের কাছে মাদক রয়েছে এই ধারণা থেকে আরেক মাদক স¤্রাট মারভিন মন্টিয়েল মারিন ও তার স্ত্রী যাত্রীদের আটক করে। তারা যখন দেখলো আসলে যাত্রীদের কাছে কোন মাদক নেই। তখন তারা যাত্রীদের গুলি করে হত্যা করে আগুনে পুড়িয়ে দেয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

গুয়াতেমালায় এক পেশাদার খুনির ৮০৮ বছর জেল

আপডেট সময় : ০৬:২১:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২৪

অনলাইন ডেস্ক: গুয়াতেমালার একটি আদালত ২০০৮ সালে ১৫ জন নিকারাগুয়ান এবং এক ডাচ নাগরিককে হত্যার দায়ে সোমবার আসামি এক মাদক স¤্রাটকে ৮০৮ বছরের কারাদন্ড দিয়েছেন।
হত্যাকান্ডে অংশ নেওয়া আসামি রিগোবার্তো দানিলো মোরালেসের বিরুদ্ধে এই সাজা ঘোষণা করেছেন আদালত।
২০১৬ সালে আরেকজন কথিত মাদক স¤্রাট মারভিন মন্টিয়েল মারিনকেও ধারাবাহিক খুনের দায়ে দীর্ঘ কারাদন্ডের সাজা দেয়া হয়।
আদালত বলেছেন, মোরালেসকে প্রতিটি হত্যার জন্য ৫০ বছর এবং অপরাধী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য আরও আট বছরের কারাদন্ড দেয়া হয়েছে।
দীর্ঘ সাজা সত্ত্বেও গুয়াতেমালার আইন অনুযায়ী একজন দন্ডপ্রাপ্ত আসামীকে মূলত ৫০ বছরের বেশি কারাভোগ করতে হয় না।
৩৭ বছর বয়সী মোরালেস ১৩ বছর পলাতক থাকার পর ২০২২ সালে গ্রেপ্তার হন। সেপ্টেম্বরে তার বিচার শুরু হয়।
প্রসিকিউটরা বলেছেন, পৃথক আরেকটি ঘটনায় ২০০৮ সালে গুয়াতেমালায় একটি বাস নিকারাগুয়ায় ঢুকে পড়ে। বাসের যাত্রীরা মাদক পাচারকারী এবং তাদের কাছে মাদক রয়েছে এই ধারণা থেকে আরেক মাদক স¤্রাট মারভিন মন্টিয়েল মারিন ও তার স্ত্রী যাত্রীদের আটক করে। তারা যখন দেখলো আসলে যাত্রীদের কাছে কোন মাদক নেই। তখন তারা যাত্রীদের গুলি করে হত্যা করে আগুনে পুড়িয়ে দেয়।