ডাবলুই থাকলেন পাশে, বাদশা তাকিয়ে প্রধানমন্ত্রীর দিকে

  • আপডেট সময় : ০৫:১৭:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০২৩ ১ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী-২ (সদর) আসনের নৌকার প্রার্থী বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এবার চ্যালেঞ্জের মুখেই পড়েছেন। রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ সভা করে কাঁচি প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী শফিকুর রহমান বাদশাকে সমর্থন দিয়েছেন। এ অবস্থায় ভোটের মাঠে বেকায়দায় পড়া ফজলে হোসেন বাদশা পাশে পেয়েছেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকারকে। শনিবার বিকালে তিনি প্রথমবারের মতো ফজলে হোসেন বাদশার সঙ্গে শহরে মিছিলে অংশ নিয়েছেন।
রাজশাহী মহানগরে ডাবলু সরকার অবশ্য এখন অনেকটা একা একাই রাজনীতি করছেন। গত ফেব্রুয়ারিতে একটি আপত্তিকর ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে বেকায়দায় পড়েন তিনি। এরপর থেকে ডাবলু সরকারকে মহানগর আওয়ামী লীগের কোন কর্মসূচিতে আমন্ত্রণ জানানো হয় না। অনুসারিদের নিয়ে ডাবলু নিজের মতো করে কর্মসূচি চালিয়ে আসছেন। শনিবারও তিনি তাঁর অনুসারিদের নিয়ে ফজলে হোসেন বাদশার সঙ্গে মিছিলে নামেন।
এ দিন ডাবলু সরকারের সঙ্গে তার দুলাভাই জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মীর ইকবাল, মীর ইকবালের ছেলে মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর ইশতিয়াক আহমেদ লিমন, ডাবলু সরকারের ভাই মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা জেডু সরকারসহ তার অনুসারীরা অংশগ্রহণ করেন মিছিলে।
মহানগর আওয়ামী লীগ সভা করে স্বতন্ত্রকে সমর্থন দিলেও ডাবলু সরকার নৌকার পক্ষে থাকার বিষয়ে বলেন, ‘আমি জীবনে কোনদিন নৌকার বিরোধিতা করিনি। এই নৌকার জন্য এত লড়াই-সংগ্রাম করেছি। তাই নৌকার পক্ষেই থাকছি।’ ডাবলু সরকার বলেন, ‘আমি বরাবরই চেয়েছি আমাদের নিজেদের দলের কাউকে নৌকা প্রতীক দেওয়া হোক। সেটা হয়নি। নৌকা পেয়েছেন শরিক দলের নেতা। তাই তার পক্ষেই কাজ করতে হচ্ছে। আগামী নির্বাচনেও যেন আওয়ামী লীগের কেউ নৌকা পায়, আমি সেটা এখনও বলব।’
এদিকে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামালসহ দলের বড় অংশই কাজ করছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী শফিকুর রহমান বাদশার পক্ষে। শফিকুর রহমান বাদশা মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি। মহানগর আওয়ামী লীগের সমর্থন পেতে ফজলে হোসেন বাদশা কয়েকদিন আগেই রাজশাহী ১৪ দলের নেতাদের সঙ্গে বসেছিলেন। তবে এতদিন কারও সঙ্গে সম্পর্ক না রাখার কারণে সাড়া পাননি। ফলে এ পর্যন্ত তিনি জোটের শরিক অন্য কোন দলকে পাশে পাননি। এ অবস্থায় তিনি তাকিয়ে আছেন জোটনেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিকে।
আওয়ামী লীগের বেশিরভাগ নেতাকর্মী পাশে নেই কেন, এমন প্রশ্নে ফজলে হোসেন বাদশা সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘আগামী ৩ তারিখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজশাহীতে ভার্চুয়ালি জনসভা করবেন। তিনি নিশ্চয় আমাদের কথা বলবেন। তারপর সবাই নৌকার পক্ষে চলে আসবে।’

নিউজটি শেয়ার করুন

ডাবলুই থাকলেন পাশে, বাদশা তাকিয়ে প্রধানমন্ত্রীর দিকে

আপডেট সময় : ০৫:১৭:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০২৩

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী-২ (সদর) আসনের নৌকার প্রার্থী বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এবার চ্যালেঞ্জের মুখেই পড়েছেন। রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ সভা করে কাঁচি প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী শফিকুর রহমান বাদশাকে সমর্থন দিয়েছেন। এ অবস্থায় ভোটের মাঠে বেকায়দায় পড়া ফজলে হোসেন বাদশা পাশে পেয়েছেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকারকে। শনিবার বিকালে তিনি প্রথমবারের মতো ফজলে হোসেন বাদশার সঙ্গে শহরে মিছিলে অংশ নিয়েছেন।
রাজশাহী মহানগরে ডাবলু সরকার অবশ্য এখন অনেকটা একা একাই রাজনীতি করছেন। গত ফেব্রুয়ারিতে একটি আপত্তিকর ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে বেকায়দায় পড়েন তিনি। এরপর থেকে ডাবলু সরকারকে মহানগর আওয়ামী লীগের কোন কর্মসূচিতে আমন্ত্রণ জানানো হয় না। অনুসারিদের নিয়ে ডাবলু নিজের মতো করে কর্মসূচি চালিয়ে আসছেন। শনিবারও তিনি তাঁর অনুসারিদের নিয়ে ফজলে হোসেন বাদশার সঙ্গে মিছিলে নামেন।
এ দিন ডাবলু সরকারের সঙ্গে তার দুলাভাই জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মীর ইকবাল, মীর ইকবালের ছেলে মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর ইশতিয়াক আহমেদ লিমন, ডাবলু সরকারের ভাই মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা জেডু সরকারসহ তার অনুসারীরা অংশগ্রহণ করেন মিছিলে।
মহানগর আওয়ামী লীগ সভা করে স্বতন্ত্রকে সমর্থন দিলেও ডাবলু সরকার নৌকার পক্ষে থাকার বিষয়ে বলেন, ‘আমি জীবনে কোনদিন নৌকার বিরোধিতা করিনি। এই নৌকার জন্য এত লড়াই-সংগ্রাম করেছি। তাই নৌকার পক্ষেই থাকছি।’ ডাবলু সরকার বলেন, ‘আমি বরাবরই চেয়েছি আমাদের নিজেদের দলের কাউকে নৌকা প্রতীক দেওয়া হোক। সেটা হয়নি। নৌকা পেয়েছেন শরিক দলের নেতা। তাই তার পক্ষেই কাজ করতে হচ্ছে। আগামী নির্বাচনেও যেন আওয়ামী লীগের কেউ নৌকা পায়, আমি সেটা এখনও বলব।’
এদিকে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামালসহ দলের বড় অংশই কাজ করছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী শফিকুর রহমান বাদশার পক্ষে। শফিকুর রহমান বাদশা মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি। মহানগর আওয়ামী লীগের সমর্থন পেতে ফজলে হোসেন বাদশা কয়েকদিন আগেই রাজশাহী ১৪ দলের নেতাদের সঙ্গে বসেছিলেন। তবে এতদিন কারও সঙ্গে সম্পর্ক না রাখার কারণে সাড়া পাননি। ফলে এ পর্যন্ত তিনি জোটের শরিক অন্য কোন দলকে পাশে পাননি। এ অবস্থায় তিনি তাকিয়ে আছেন জোটনেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিকে।
আওয়ামী লীগের বেশিরভাগ নেতাকর্মী পাশে নেই কেন, এমন প্রশ্নে ফজলে হোসেন বাদশা সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘আগামী ৩ তারিখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজশাহীতে ভার্চুয়ালি জনসভা করবেন। তিনি নিশ্চয় আমাদের কথা বলবেন। তারপর সবাই নৌকার পক্ষে চলে আসবে।’