রুদ্ধশ্বাস খেলায় বিশ্বকাপ ইংল্যান্ডের

61

গণধ্বনি ডেস্ক : ৪৪ বছর। ৪৪ বছরের প্রতীক্ষার অবসান হলো ইংল্যান্ডের। বিশ্বকাপ যাত্রা শুরু করার এই এত বছর পর এসে অবশেষে সেই ট্রফিটা জিততে পারল ক্রিকেটের প্রচলন ঘটানো এই দেশটি। আর সেই জয় এলো কী নাটকীয়তার ভেতর দিয়ে!

বিশ্বকাপ ইতিহাসের সেরা ফাইনালটি দেখল গতকাল লর্ডস। ফাইনালের প্রথম অংশে ম্যাচ টাই হলো। এরপর খেলা গড়াল সুপার ওভারে। সেই সুপার ওভারে ইংল্যান্ড আগে ব্যাট করে করল ১৫ রান। আর সেই ১৫ রান তুলতে পারল না নিউজিল্যান্ড। বেশি বাউন্ডারি মারায় জয় পায় ইংল্যান্ড। ভাগ্য নিজের হাতে করে ট্রফি তুলে দিল ইংল্যান্ডের হাতে। ম্যান অব দ্য ফাইনাল হয়েছেন বেন স্টোকস। ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট হয়েছেন কেন উইলিয়ামসন।

এর আগে মূল ম্যাচে শেষ ১৮ বলে ইংল্যান্ডের দরকার ছিল ৩৪ রান। হাতে ৪ উইকেট। ৪৮তম ওভারে এলো ১০ রান। শেষ ১২ ওভারে দরকার ছিল ২৪ রান। ঐ ওভারে এলো ৯ রান; ইংল্যান্ড হারাল ২ উইকেট। এর মধ্যে বেন স্টোকস এক প্রান্তে ব্যাট হাতে আক্রমণ চালিয়ে যাচ্ছিলেন।

শেষ ওভারে ১৫ রান দরকার; স্টোকস ছিলেন স্টাইকে। প্রথম ২ বলে রান নেই। পরের বলে ছক্কা মেরে দিলেন স্টোকস। পরের বলে দৌড়ে দুই রান এবং ওভার থ্রো থেকে ৪ রান। মানে, পরের ২ বলে দরকার ৩ রান। স্টোকস দুই বলেই দৌড়ে দুটি রান নিলেন এবং দুই বলেই একটি করে রানআউট হলো। ফলে শেষ বলে দুই দলের স্কোর সমান হয়ে গেল।

এর আগে নিউজিল্যান্ডের ছুড়ে দেওয়া ২৪১ রানের লক্ষ্যে ছুটতে গিয়ে ৮৬ রানে ৪ উইকেট হারিয়েছিল ইংল্যান্ড। এখান থেকে জস বাটলারকে নিয়ে পালটা আক্রমণ করেন স্টোকস। বাটলার ৫৯ রান করে আউট হয়ে গেলে শেষের দিকের ব্যাটসম্যানদের নিয়ে লড়াই করেন স্টোকস। নিজে শেষ পর্যন্ত ৮৪ রানে অপরাজিত থাকেন।

টসে জিতে আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় নিউজিল্যান্ড। বাউন্ডারি মেরে মার্টিন গাপটিল ফর্মে ফেরার ইঙ্গিত দিচ্ছিলেন। কিন্তু ১৯ রান করে ওকসের শিকারে পরিণত হন তিনি। এরপর আরেক ওপেনার নিকোলস ও অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন দলকে টেনে নেওয়ার চেষ্টা করেন। উইলিয়ামসন ৩০ রান করে ফিরে আসেন। পরপরই নিকোলস ৭৭ বলে ৫৫ রানের ইনিংস খেলে প্লাঙ্কেটের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন।

এরপর বাকি ইনিংসটা টেনে নেওয়ার চেষ্টা করেছেন লাথাম। রস টেলর ১৫ রান করে বিতর্কিত সিদ্ধান্তের শিকার হন। ১৯ রান করে ফিরে আসেন জিমি নিশম। কলিন ডি গ্রান্ডহোম ১৬ রান করে ওকসের তৃতীয় শিকারে পরিণত হন।

শেষ পর্যন্ত সপ্তম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন লাথাম। তিনি ৫৬ বলে ৪৭ রানের ইনিংস খেলেন। এরপর শেষ দুটি ওভারে আর সেভাবে রান তুলতে পারেনি নিউজিল্যান্ড।

SHARE