রাবিতে সক্রিয় ভর্তি জালিয়াতি চক্র (অডিওসহ)

205

রাবি : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে প্রথমবর্ষ  স্নাতক (সম্মান) ভর্তি পরীক্ষার বাকি আর মাত্র আটদিন। আগামী ২২ ও ২৩ অক্টোবর ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এ ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যেই সক্রিয় হয়ে উঠেছে জালিয়াতি চক্র। তাদের একটি অডিও ফাঁস হয়েছে।

প্রতিবছরই জালিয়াতির মতো ঘটনা ঘটলেও তেমন বিচার না হওয়ায় জড়িতরা পার পেয়ে যাচ্ছে বলে সংশ্লিষ্টদের অভিমত। তবে এ বছরও যেকোন উপায়ে জালিয়াতি ঠেকাতে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আগে থেকে ঘোষণা দিয়েছে। কিন্তু থেমে নেই ভর্তি জালিয়াতি। এসব চক্রে জড়িত রয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রসংগঠনের নেতারাও। গত বৃহস্পতিবার জালিয়াতি চক্রের এক সদস্যের সঙ্গে একজন ভর্তিচ্ছুক শিক্ষার্থীর ফোনালাপ পদ্মাটাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকম এর হাতে এসেছে।

ওই ফোনালাপে শান্ত নামের জালিয়াতি চক্রের এক সদস্যের সঙ্গে রাফি নামের এক ভর্তিচ্ছুর টাকার বিনিময়ে ভর্তির বিষয়ে কথা হয়। ওই ভর্তিচ্ছুর কাছ থেকে তিন লাখ টাকা দাবি করা হয়। দর কষাকষির একপর্যায়ে তাদের মধ্যে আড়াই লাখ টাকার চুক্তি হয়। দুজনের মধ্যে মোট ৯ মিনিট ৫৫ সেকেন্ড কথা হয় এবং ওই ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীকে রাবি ক্যাম্পাসে ডাকা হয়।

ওই ফোনালাপে দুজনের কথোপকথনের কিছু অংশ তুলে ধরা হলো-

ভর্তিচ্ছুক শিক্ষার্থী : ‘ভাইয়া আমি সেকেন্ড টাইম পরীক্ষা দিচ্ছি। যেকোন মূল্যে পাবলিক ভার্সিটিতে ভর্তি হতে হবে। বাসা থেকে চাপ দিচ্ছে। কত লাখ টাকা লাগতে পারে?’

ফোনের ওপাশ থেকে শান্ত বলেন, ‘তুমি কোন ইউনিটে ফরম তুলছো? সায়েন্স হলে একটু কঠিন, আর্টসে সহজে করে দেয়া যাবে। এজন্য ৩ লাখ টাকা লাগবে।’

ভর্তিচ্ছু বলেন, ‘একটু কনসিডার করেন ভাইয়া।’

এরপর শান্ত বলেন, ‘ভাই, আমাদের সিস্টেম হচ্ছে প্রক্সি। এখানে ঢাকা থেকে এক্সপার্ট এসে পরীক্ষা দিয়ে যায়। তাদেরকে দিতে হয় দেড় থেকে দুই লাখ টাকা। একটি সিন্ডিকেট আছে তাদেরও টাকা দিতে হয়। তারপর আমাদের জন্য খুব একটা বেশি লাভ থাকে না। ঠিক আছে তুমি যেহেতু বলছো তোমার জন্য আড়াই লাখ করে দিতে পারবো। এর কম হবে না।’

[youtube https://www.youtube.com/watch?v=Hl15ssXuo0I?feature=oembed]

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, ‘গতবছরের মতো এবারও ভর্তি পরীক্ষায় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হবে। যেকোনো ধরনের জালিয়াতি ঠেকাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর থাকবে। এ নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গেও আলোচনা হয়েছে।’

SHARE