নাটোরে আগুনে পুড়ে ছাই নয় বাড়ি

79

নাটোর প্রতিনিধি : নাটোরে পৃথক দুটি স্থানে অগ্নিকান্ডে নয়টি বাড়ি আগুনে পুড়ে ছাই। নাটোরের লালপুর উপজেলার পানসিপাড়া গ্রামে অগ্নিকাণ্ডে পাঁচটি বাড়ির ১০টি বসতঘর পুড়ে ছাই হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের দাবি আগুনে তাদের কয়েক লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। শনিবার দুপুর ২টার দিকে এ অগ্নিকাণ্ড ঘটে। খবর পেয়ে লালপুর ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ক্ষতিগ্রস্তরা হলেন- ওই গ্রামের আশিদুল ইসলাম, মজনু হোসেন, মিনা বেগম, বেদেনা ও ফজলুর রহমান। লালপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা রুহুল আমিন বলেন, দুপুরে মজনুর স্ত্রী রান্না করার সময় আগুনের সূত্রপাত ঘটে। মুহূর্তের মধ্যে আগুন আশেপাশে ছড়িয়ে পড়ে। এতে পাঁচটি বাড়ির মালামালসহ ছোট-বড় প্রায় ১০টি বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। ঘরের মালামাল সরানোর চেষ্টা করলেও তাতে কোনো লাভ হয়নি। পরে খবর পেয়ে লালপুর ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয় বলেও জানান তিনি। এছাড়া, নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলার শাখাড়ীপাড়া গ্রামে অগ্নিকাণ্ডে চারটি বাড়ির আটটি বসতঘর, নগদ টাকাসহ মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। শনিবার দুপুর পৌনে ১টার দিকে এ অগ্নিকাণ্ড ঘটে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ক্ষতিগ্রস্তরা হলেন- শাখাড়ীপাড়া গ্রামের আবু তাহের, তোফাজ্জল হোসেন, মাবিয়া বেগম ও আজিবর রহমান। নাটোর ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন মাস্টার আকতার হামিদ খান বলেন, দুপুরের দিকে আবু তাহেরের বাড়িতে রান্না ঘরে বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। পরে আগুন ছড়িয়ে পড়ে চারটি বাড়ির আটিটি বসতঘর, রান্নাঘর, চাল, ডাল, ৪০ মণ পেঁয়াজ, ২০ মণ রসুন, আসবাবপত্র, নগদ এক লাখ টাকাসহ বিভিন্ন মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে প্রায় কয়েক লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এদিকে আগুন লাগার খবর পেয়ে নলডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাকিব আল রাব্বী, জেলা পরিষদ সদস্য রঈস উদ্দিন রুবেল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন তারা।

SHARE