স্বাচ্ছন্দেই আছে অলোকার কাশির পরিবার

118

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী নগরের অলোকার মোড়ে কাশির চায়ের দোকান। রয়েছে তার চায়ের কদরও। এলাকাটি কর্মব্যস্ত হওয়ায় তার দোকানে প্রায় প্রতিদিনই থাকে ভিড়। বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন আসে তার দোকানে চা পান করতে। কাশির সংসার চলে তার চায়ের দোকানের উপর। গত বছর এক দুর্ঘটনায় কাশির হাত ভেঙে যায়। পরিবারের একমাত্র কর্মক্ষম কাশি। ফলে সংসার চালানোর কথা ভেবে চারিদিকে অন্ধকার দেখছিল তার পরিবার। কাশির এমন দুশ্চিন্তা দেখে তার অর্ধাঙ্গী ঠিক করে সে নিজেই দোকান চালাবে। যে কথা সেই কাজ। ভোরেই সংসারের কাজ গুছিয়ে দোকানে চলে আসে সে। এবার ক্রেতাদের আবদার মাফিক দিনমান চা বানান। কথাগুলো সহজ শোনালেও কাশীর স্ত্রীর জন্য একা হাতে এতো কাজ সামলানো মোটেও সহজ ছিলো না। সংসার সামলে স্বামী-সন্তানের সেবা করে রুজি-রুটির জন্য আবার দোকন সামলানো। এ যেনো মত্যে থাকা দুর্গার রূপ। দেবতার দেয়া এক শরীরে যেনো দশ হাত দিয়ে কাজ করে ফিরছেন এই নারী। চায়ের দোকানে আসা সকলেই এখন তাকে বৌদি বলেই ডাকে। স্বামীর হাত ভেঙে গেলে প্রথম দিকে কিছুটা দুশ্চিন্তায় থাকলেও, কারো দুয়ারে হাত না পেতে নিজেই স্বামীর ব্যবসার হাল ধরে। দিন-রাত পরিশ্রম করে যে আয় হয় তা দিয়ে স্বাচ্ছন্দেই আছে পুরো পরিবার।

SHARE