পল্ট্রিতে অতিরিক্ত এন্টিবায়োটিক ব্যবহারে মানবদেহে রোগ-বালাই বাসা বাধছে

70

স্টাফ রিপোর্টার : পল্ট্রি খামারগুলোতে অতিরিক্ত এন্টিবায়োটিক ব্যবহারের ফলে মানবদেহে নানা রোগ-বালাই বাসা বাধছে। তবে অতিরিক্ত এন্টিবায়োটিক ব্যবহার থেকে খামারিদের নিরুৎসাহিত করতে ক্যাব একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে পবা উপজেলায়। এ প্রকল্পের আওতায় খামারি, ফিড ব্যবসায়ী, হাঁস-মুরগীর ব্যবসায়ীসহ পল্ট্রির সঙ্গে জড়িতদের সচেতনতা সৃষ্টিতে কাজ করে যাচ্ছে। সেমিনারে জানানো হয়, রাজশাহীতে বছরে ৪৫ কোটি ডিম উৎপাদন হচ্ছে বলে জানা গেছে। বৃহস্পতিবার সকালে রাজশাহীর একটি রেস্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত সেমিনারে এ তথ্য জানানো হয়। কনজুমার এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) আয়োজিত সাংবাদিকদের নিয়ে নিরাপদ পল্ট্রি খাদ্যবিষয়ক এ সেমিনারটি আয়োজন করা হয়। সভায় আরো জানানো হয়, রাজশাহীতে মোট ডিমের চাহিদা রয়েছে ৩৪ কোটি। কিন্তু সেখানে উৎপাদন হচ্ছে ৪৫ কোটি। এর মধ্যে জেলার পবাতেই উৎপাদন হচ্ছে প্রায় ৮ কোটি। এছাড়াও রাজশাহীতে পল্ট্রি খামার রয়েছেএক হাজার ৪টি। এর মধ্যে লেয়ার খামার রয়েছে ৩৯৩টি, ব্রয়লার খামার ৬৫০টি ও হাঁসের খামার রয়েছে ১০৪টি। এতে আলোচনা করেন রাজশাহী জেলা ভারপ্রাপ্ত পশুসম্পদ কর্মককর্তা জুলফিকার মো: আক্তার হোসেন ও ক্যাব রাজশাহীর সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা মামুন। উপস্থিত ছিলেন ক্যাবের রাজশাহী শাখার সভাপতি কাজী গিয়াস, পবা শাখার সম্নয়ক নাজমুল হক, প্রকল্প কর্মকর্তা মিজানুর রহমান।

SHARE