ক্রাইস্টচার্চ হামলায় ক্রিকেট বিশ্বের শোক

107

গণধ্বনি ডেস্ক : প্রায় এক দশক আগে পাকিস্তানের লাহোরে শ্রীলংকা দলের ওপর সন্ত্রাসী হামলা হয়েছিল। এরপর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আয়োজনের অধিকার একপ্রকার হারিয়েছে পাকিস্তান। ২০০৯ সালের সেই ঘটনাও ছিল মার্চে। ৩ মার্চ। এরপর অনেক দেশে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। কিন্তু খেলোয়াড়দের তার মধ্যে পড়তে হয়নি। এবার নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ আবার লাহোরের ঘটনা মনে করিয়ে দিল। আশার কথা হলো বাংলাদেশ ক্রিকেট দল হামলার মধ্যে পড়েনি এবং প্রত্যেকে নিরাপদে আছেন।

হ্যাগলি ওভালের ম্যাচটি এরইমধ্যে বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। নিউজিল্যান্ডে আলাদা দুই মসজিদে হামলায় এখন পর্যন্ত অন্তত ৪৯ জন নিহত হয়েছেন। তার মধ্যে তিনজন বাংলাদেশি আছেন। এছাড়া গুরুতর আহত আরও অন্তত ৪৬ জন। নিউজিল্যান্ডের মতো শান্তিপ্রিয় দেশে এই হামলা বিশ্বকে নাড়া দিয়েছে। ক্রিকেট বিশ্বকেও নাড়া দিয়েছে হামলাটি।

ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি টুইট করেছেন, ‘আতঙ্কের এবং দুঃখজনক। ক্রাইস্টচার্চে কাপুরোষিত এই ঘটনায় আমার মন কাঁদছে। বাংলাদেশ দলও ভাবাচ্ছে আমাকে। নিরাপদে থেকে তোমরা।’ ওয়াটসন লিখেছেন, ‘যাদের ওপর এই ঘটনার প্রভাব পড়েছে তাদের পরিবার-পরিজন, বন্ধু-বান্ধবের প্রতি সমবেদনা।’

শোয়েব আখতার টুইট করেছেন, ‘ক্রাইস্টচার্চে মসজিদের ওই গোলাগুলি দেখে হতভম্ব হয়ে গেছি। আমরা এখন ঘরের মধ্যে কিংবা প্রার্থনালয়েও নিরাপদ নই। এই সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের তীব্র নিন্দ্বা জানায়। ভালো খবর হলো বাংলাদেশ ক্রিকেট দল নিরাপদে আছে।’ ইরফান পাঠান লেখেন, ‘আমার প্রিয় এক দেশে ভয়ঙ্কর এমন ভিডিও দেখে আমার হৃদয় ভেঙে গেছে।’ সাবেক অজি ক্রিকেটার মাইক হাসি লিখেছেন, ‘ক্রাইস্টচার্চে সঙ্গে এমন হতে পারে না?! আমার কিউই বন্ধুদের নিয়ে ভাবছি। আশা করছি তোমরা সবাই ভালো আছে।’

এছাড়া নিউজিলান্ডে এই সন্ত্রাসী হামলায় অজি ওপেনার উসমান খাজা, লংকান ক্রিকেটার কুমার সাঙ্গাকারা, মাহেলা জয়বর্ধানে, ভারনন ফিল্যান্ডার শোক জানিয়েছেন। ভিভিএস লক্ষ্ণণ, পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ ছাড়াও অশ্বিন, অরন্যাল্ড রাসেল, জেমি নিশামরা শোক ও নিন্দ্বা জ্ঞাপন করেছেন। শোক প্রকাশ করেছেন কেএল রাহুল, হরভজন সিংসহ আরও অনেকে।

SHARE