নগরীতে ১৪ দলের সমাবেশ আজ : নেতাকর্মীরা চাঙ্গা

182

স্টাফ রিপোর্টার : আজ মঙ্গলবার নগরীর সাহেববাজার গণকপাড়া মোড়ে বিকাল ৩টায় ১৪ দলের সমাবেশ। এই সমাবেশকে ঘিরে ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। নেতাকর্মীদের মধ্যে উচ্ছ্বাস-উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গেছে। সমাবেশকে ঘিরে ইতোমধ্যে ১৪ দলের সমন্বয়ে ২টি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় মহানগর দলীয় কার্যালয়ে সমাবেশকে সফল করার লক্ষ্যে আরেকটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। তবে সমাবেশকে ঘিরে মাইকিং করা হলেও ব্যানার-ফেস্টুন লক্ষ্য করা যায়নি। এই সমাবেশে ২৫ থেকে ৩০ হাজার লোক সমাগমের টার্গেট নির্ধারণ করেছে ১৪ দল।
বিএনপি-জামায়াত ও ঐক্যজোটের নামে সাম্প্রতিক ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। ১৪ দলের মুখপাত্র ও আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। এছাড়া সমাবেশে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবীর নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নির্বার্হী সদস্য ও সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, নুরুল ইসলাম ঠান্ডু, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, তরিকত ফেডারেশন সভাপতি নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী, জেপির মহাসচিব শেখ শহীদুল ইসলাম, ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি, জাসদ একাংশের সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া ও বাসদ একাংশের আহ্বায়ক রেজাউর রশীদ খান প্রমুখ অংশ নেবেন বলে জানা গেছে।
রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ এই সমাবেশের প্রস্তুতি সম্পর্কে বলেন, ১৪ দলের প্রস্তুতি সভার পর জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সংগঠনিকভাবে আমরা সভা করেছি। সেই সাথে প্রত্যেক উপজেলায় প্রতিদিন দুইটি করে মাইকিং করা হয়। আশা করি এই সমাবেশে ৩০ হাজার লোকের সমাগম ঘটবে।
মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক দেবাশীয় প্রামাণিক দেবু বলেন, সমাবেশকে ঘিরে প্রত্যেক দিন ১০টি অটোরিকশায় মাইকিং করা হয়। সেই সাথে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে সমাবেশকে সফল করার জন্য মিছিল-মিটিং করা হয়। জনসভা সফল করতে নেতাকর্মীরা দিনরাত সমানভাবে পরিশ্রম করছে। এই সমাবেশ রাজনৈতিকভাবে রাজশাহী অঞ্চলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। কারণ বিএনপিসহ কিছু দল জাতীয় নির্বাচনকে বানচালের পায়তারা করছে। এর প্রতিবাদ জানানো হবে এই সমাবেশে।
তিনি আরও বলেন, ১৪ দলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ব্যানার-ফেস্টুন করা হয়নি। কারণ সামনে জাতীয় নির্বাচন। আর রাজশাহীতে বিভিন্ন আসনে একাধিক প্রার্থী রয়েছে। তাই সমাবেশের সময় অনেকে শোডাউন দিতে গিয়ে বিশঙ্খলার সৃষ্টি হতে পারে। এ কারণে ব্যানার- ফেস্টুন প্রদর্শন করা যাবে না। তবে এই সমাবেশকে ঘিরে ১৪ দলের নেতাকর্মীরা চাঙ্গা আছে।
১৪ দলের জনসভা সফল করার লক্ষে গতকাল দিনব্যাপি বিভিন্ন ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেছে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। এসময় উপস্থিত ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুস্তাক হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান আজাদ, সদস্য আহসানুল হক পিন্টু, নগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সালমা রেজা, মতিহার থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দীন আলীসহ মতিহার থানা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।
এদিকে, ১৪ দলের সমাবেশ সফল করার লক্ষে গতকাল পবায় উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যা রাতে হড়গ্রাম ইউনিয়নের বালিয়ার মোড়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। হড়গ্রাম ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী ও সহযোগি সংগঠনের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত বৈঠকে প্রধান অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন। হড়গ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন পবা উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক তফিকুল ইসলাম, হরিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান নবাব, যুবলীগ সভাপতি বাবর আলী, সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান, হড়গ্রাম ইউপি’র সদস্য দুলাল হোসেন, আকরাম আলী, মহিলা সদস্য সেলিনা বেগম, হড়গ্রাম ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী সভাপতি সাজাহান আলী। ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আলম হোসেনের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন পবা উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ানুল কারিম প্রমুখ। এরপর প্রধান অতিথি হরিয়ান ও পারিলায় অনুরুপ বৈঠক করেন।

SHARE