নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণায় নারীদের অংশগ্রহণ নারীর ক্ষমতায়নে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ

136

স্টাফ রিপোর্টার : অন্য যেকোনো নির্বাচনের চেয়ে এইবার প্রচার-প্রচারণায় নারীদের ব্যাপক অংশগ্রহণ লক্ষ্য করা গেছে। এটাকে নারীদের জাগরণ বলেই মনে করছেন নারী নেত্রীরা। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের শেষ দিন ছিলো গতকাল বৃহস্পতিবার। প্রচারণার শেষ দিনেও ব্যাপক অংশগ্রহণ ছিলো নারীদের। শুধু গতকাল না, প্রচারণার শুরু থেকেই প্রতিটি গণসংযোগেই নারী কর্মীদের ব্যাপক অংশগ্রহণ দেখা গেছে। তারা পুরুষ কর্মীদের সাথেই সকাল থেকে রাত পর্যন্ত গণসংযোগ ও প্রচার-প্রচারণা চালিয়েছেন। নারীদের এই ব্যাপক অংশগ্রহণকে নারীনেত্রীরা নারীর ক্ষমতায়ন হিসেবেও দেখছেন।
খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতীক বরাদ্দের পর থেকেই রাজশাহীর ছয়টি সংসদীয় আসনেই প্রচার-প্রচারণা শুরু হয়। তখন থেকেই প্রচারণায় পুরুষদের সাথে সাথে নারী কর্মীদেরও দেখা গেছে। শুধু তাই না, মহানগর থেকে শুরু করে গ্রাম পর্যন্ত নারীরা প্রচার-প্রচারণায় অংশ নিয়েছেন। আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নারী নেত্রীরাও ঘুরে বেড়িয়েছেন এক আসন থেকে আরেক আসনে। তারা ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করেছেন। উন্নয়ন ও গণতন্ত্রের প্রতি চেয়েছেন আবারো সমর্থন। এই সব প্রচারণায় অংশ নেন, বিভিন্ন মহল্লার বিভিন্ন বয়সি নারীরা। উঠান বৈঠক, গণসংযোগ, জনসভা কিংবা পথসভাÑসবকিছুতেই ছিলো নারীদের সমান অংশগ্রহণ।
নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণার আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হওয়ার পর থেকেই নগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি শাহিন আকতার রেণী প্রতিদিনই প্রচার-প্রচারণায় অংশ নিয়েছেন। তিনি নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে গিয়ে নৌকার পক্ষে ভোট প্রার্থনা করেছেন। নারীদের নিয়ে সমাবেশ করেছেন, উঠান বৈঠক করেছেন, পথসভা করেছেন ও গণসংযোগ করেছেন বিভিন্ন ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে।
তিনি বলেন, প্রচার-প্রচারণায় নারীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের চিত্রই বলে দেয়, নারীরা এখন অনেক বেশি ক্রিয়াশীল। তারা ঘর- গেহস্থের কাজে যেমন পারদর্শী, ঠিক একইভাবে পারদর্শী রাজনীতিতে কিংবা অন্য যেকোনো ক্ষেত্রে। এটা আসলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গৃহিত যে পরিকল্পনা ছিলো নারী ক্ষমতায়ন ঘটানো। তারই প্রকাশ। সব জায়গায় নারীদের স্বতংস্ফূর্ত অংশগ্রহণের চিত্রই বলে দেয় নারীরা এখন অনেক বেশি রাজনীতিমুখি। তারা পরিবর্তনে আগ্রহী। তাই ঘরে আর তারা বন্দি নেই।
জেলার বিভিন্ন আসনে প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে আসছেন জেলা মহিলা লীগের সভাপতি মর্জিনা পারভীন। তিনি বলেন, জেলার যেখানে গেছি সেখানেই নারীদের স্বতঃফূর্ত অংশগ্রহণ দেখতে পেয়েছি। নারীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের চিত্রই আমাদের আশান্বিত করেছে। আমরা আশাবাদী, আগামি নির্বাচনেও নৌকা বিপুল ভোটে জয়ী হবে।
রাজশাহী সংরক্ষিত আসনের নারী সাংসদ আখতার জাহান বলেন, নারীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের চিত্রই আমাদের বলে দেয়, দেশটা আসলে কতটা এগিয়েছে। একটি দেশের উন্নয়নের মাপকাটি নারীর ক্ষমতায়নের মধ্য দিয়েও প্রতিভাত হয়। আসলে সেই দেশটা কতটা এগিয়েছে। নির্বাচনী সব ধরনের প্রচার-প্রচারণায় নারীদের যেভাবে অংশগ্রহণ দেখেছি তা সত্যিই আমাদের বিমোহিত করেছে। আমরা আশান্বিত হয়েছি। সারাদেশে যে উন্নয়ন ঘটেছে তার প্রতিই আসলে বিশ^াস রেখেছে রাজশাহীর নারীরা।
নগর মহিলালীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ইপফাৎ আরা কামাল বলেন, আমরা নির্বাচনের শুরু থেকেই প্রতিটি বাড়িতে যাওয়ার চেষ্টা করেছি। সেখানে নারীদের ব্যাপক সাড়া পেয়েছি। তারা আমাদের সমর্থন দিয়েছেন। তারাও আসলে উন্নয়ন, গণতন্ত্র ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার প্রতি বিশ^াস রেখেছেন।

SHARE