উত্তরাঞ্চলের রাজধানী হবে রাজশাহী: বাদশা

177

স্টাফ রিপোর্টার : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজশাহী-২ (সদর) আসনে ১৪ দল মনোনীত ও মহাজোট সমর্থিত প্রার্থী ফজলে হোসেন বাদশা বলেছেন, এবার তিনি নির্বাচিত হলে রাজশাহী হবে উত্তরাঞ্চলের রাজধানী। তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত সরকার ক্ষমতায় থাকাকালে আমাদের কাছ থেকে অনেক কিছু কেড়ে নিয়ে গিয়ে বগুড়ায় দেয়া হয়েছে। এখন আমরাও অনেক কিছু কেড়ে রাজশাহীতে নিয়ে আসব। রাজশাহীর উন্নয়ন করব। রাজশাহী হবে উত্তরাঞ্চলের রাজধানী।

বুধবার সকালে নগরীর তিন নম্বর ওয়ার্ডের ডিঙ্গাডোবা এলাকায় গণসংযোগের শুরুতে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। রাজশাহী সদরের টানা দুইবারের এই সংসদ সদস্য বলেন, রাজশাহীতে আমার জন্ম। আমি এখানে বড় হয়েছি, রাজনীতি শিখেছি। রাজশাহীর মানুষ আমাকে কাছে রেখেছেন এবং রাখবেন। তারা বিপুল ভোটে আমাকে আবারও নির্বাচিত করবেন।

তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মিজানুর রহমান মিনুর নানা অভিযোগ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বাদশা বলেন, আমার বিরুদ্ধে একটা দুর্নীতির অভিযোগ তুলুক না। লোকে হাসবে। ১০ বছরে একটা দুর্নীতি করেছি, এমন নজির দেখাতে পারবে না। এটা রাজশাহীর মানুষ জানেন। আর আমার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর বিরুদ্ধে তো থানায় ১৭টা মামলা। খুনের মামলা, চুরির মামলা, চাঁদাবাজির মামলা, জঙ্গিবাদের মামলা, কী অভিযোগ নেই তার বিরুদ্ধে! সবই আছে।

নির্বাচনে নিশ্চিত পরাজয় জেনে বিএনপি প্রার্থী মিথ্যাচার করছেন উল্লেখ করে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, রাজশাহীতে বিএনপির জয়ের কোনো সম্ভাবনা নেই। নৌকার জনমত দেখে তারা বুঝে গেছে ধানের শীষের ঘাঁটি ভেঙে গেছে। এটা বাস্তবতা। তাই তারা মিথ্যাচার করছে। আমরা শান্তিপূর্ণ পরিবেশেই নির্বাচন শেষ করতে চাই। বিএনপি-জামায়াত সহিংসতার চেষ্টা করলে জনগণ তাদের প্রতিহত করবে।

ফজলে হোসেন বাদশা এ দিন ডিঙ্গাডোবা মোড় ও নিমতলা বাজারসহ আশপাশের পাড়া-মহল্লায় নৌকা প্রতীকের প্রচারণা চালান। তিনি স্থানীয় মহল্লাবাসী ও ব্যবসায়ীদের হাতে হাতে নৌকা প্রতীকের লিফলেট তুলে দেন। আগামী ৩০ ডিসেম্বর নৌকা প্রতীকে ভোট দেয়ার জন্য তিনি আহ্বান জানান। তার সঙ্গে বিশাল এক মিছিল নিয়ে প্রচারণায় যোগ দেন ১৪ দলের নেতৃবৃন্দ। ‘নৌকা’ ‘নৌকা’ শ্লোগান তুলে তারা চারপাশ মুখর করে তোলেন।

প্রচারণায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নগর ওয়ার্কার্স পার্টির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য আবু সাঈদ, সদস্য সিরাজুর রহমান খান, রাজপাড়া থানা সম্পাদক আবদুল মতিন, ছয় নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নুরুজ্জামান টুকু, তিন নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহাতাব হোসেন, সাধারণ সম্পাদক রতন আলী, ওয়ার্ড ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি গিয়াস উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক শাহ্আলম, রাজশাহী পশ্চিমাঞ্চল মুক্তিযোদ্ধা সমবায় সমিতির সভাপতি আবদুল আজিজ, মুক্তিযোদ্ধা আমিনুল হক টুকু, মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান আলী, দিগন্ত প্রসারি সংঘের সাধারণ সম্পাদক নুরুল হক প্রমুখ।

SHARE