কোন প্রতিবন্ধকতাই ধানের শীষের বিজয় রোধ করতে পারবে না: মিনু

157

স্টাফ রিপোর্টার : সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আজ মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ৭ নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার অন্যতম উপদেষ্টা, সাবেক মেয়র ও সংসদ সদস্য এবং রাজশাহী সদর আসনের ধানের শীষের প্রার্থী জননেতা মিজানুর রহমান মিনু। এ সময়ে দলীয় নেতাকর্মী ও ভোটারদের উদ্যেশে বলেন, রাজশাহীতে ধানের শীষের জোয়ার বইছে। কোন প্রতিবন্ধকতাই ধানের শীষের বিজয় রোধ করতে পারবে না। ধানের শীষে জোয়ার দেখে নৌকার প্রার্থী সর্মথকরা ভীত হয়ে পড়েছে। তারা এখন নির্বাচন বানচালের জন্য নানা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে। বিভিন্ন স্থানে তারা ধানের শীষের প্রচার মিছিল ও গণসংযোগে বাধা দিচ্ছে । অফিস ভাঙ্গচুর, অগ্নি সংযোগ ও পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন ছিড়ে ফেলছে। ধানের শীষের নেতাকর্মী ও সমর্থকদেরন বাড়িতে হামলা করছে। ধারালো অস্ত্র ও আগ্নেয় অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে আহত করছে। শুধু তাই নয় রাতের অন্ধকারে সরকার দলীয় ক্যাডার ও সন্ত্রাসীরা মোটর সাইকেল নিয়ে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে বলে জানান মিনু।
মিনু আরো বলেন, রাজশাহীর সদর আসনের নৌকার প্রার্থী উন্নয়ন নিয়ে মিথ্যাচার করছে। রাজশাহীর যত উন্নয়ন হয়েছে বিএনপি’র আমলে। মেয়র ও সংসদ্য মিলে তিনি দীর্ঘ ১৭ বছর রাজশাহীর জনগণের সেবা করেছেন। সে সময়ে তিনি রাজশাহীতে ওয়াসা স্থাপন করেন, পদ্মানদী থেকে পানি তুলে এনে ট্রিটমেন্ট করে তা জনগণের মধ্যে সরবরাহ অব্যাহত রয়েছে। শিল্পের প্রসারে পাইপ লাইনের মাধ্যমে গ্যাস আনা হয় এবং বেগম খালেদা জিয়া এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। জলাবদ্ধতা নিরসনে ড্রেনেজ মাস্টার প্লান করা হয়। এর ফলে ব্যপক বৃষ্টি হলেও শহরে আজও জলাবদ্ধতা হয়না। রাজশাহীর উন্নয়নে শিল্প কারখানা স্থাপন করা শুরু হয়। তবে বর্তমানে এই কাজটি অসাপ্ত রয়েছে। রুক্ষ নগরীকে সবুজে মোড়ানোর জন্য ব্যপক বনায়ন করা হয়। ইপিজেট স্থাপন, সিল্কসিটি প্রকল্প গ্রহন করেন, কিন্তু সেটা বাস্তবায়ন এখনো বাস্তবায়ন হয়নি। এছাড়াও ২৯টি পার্ক নির্মান প্রকল্প গ্রহন করেন। ধর্মীয় বিষয় নিয়ে তাঁকে সারাজীবন মনে রাখবে। তিনি টিকাপাড়া, গোরহাঙ্গা ও ডাসমারী গোনস্থান সহ অন্যান্য গোরস্থান সংস্কার, টিকাপাড়া ও কেন্দ্রীয় ঈদগাহ সহ মোট ১৮টি মাঠ সংস্কার ও নির্মান এবং ৫০০টি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সংস্কার ও নির্মান করেন। খ্রীষ্টানদের চার্জ সংস্কার ও উন্নয়ন এবং হিন্দু ধর্মের জনগণনের শ্মশান ও মন্দির সংস্কার ও উন্নয়ন এবং নতুন করে নির্মান। সুউচ্চ বড় মসজিদ তার প্রমান। এছাড়াও আরডিএ ভবন নির্মান, পশ্চিমাঅঞ্চল রেলওয়ে ভবন নির্মান ও আধুনিকী করণ, রাজশাহীতে ১০তলা কৃষি ব্যাংক ভবন নির্মান, সিটি ভবন নির্মান, সুইমিং পুল স্থাপন, ডিসি অফিসের সমানে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নামসহ স্মৃতি ফলক নির্মান, মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা প্রদান এবং শিক্ষার্থীদের মেয়র পদক প্রদান তাঁর আমল থেকে শুরু হয়। এছাড়াও বিভাগীয় স্টেডিয়ামের উন্নয়ন করাসহ খেলা ধুলার অভুতপূর্ব উন্নয়ন করেন বলে জানান তিনি। মূলত শহরটি তাঁর সময়ে আধুনিক মহানগরীতে পরিণত হয়। নির্বাচিত হলে আগামীতে রাজশাহীকে বিশে^র অন্যতম নগরী হিসেবে গড়ে তুলবেন বলে জানান। তাঁর উন্নয়নের কথা চিন্তা করে জনগণ ধানের শীষে ভোট দেবন বলে জানান মিনু।
মিনু নগরী ভাটাপাড়া কাদেরন মন্ডলের মোড় থেকে গণসংযোগ শুরু করেন। এসময়ে সহস্্রাধিক নেতাকর্মী ও সমর্থকরা গণসংযোগে অংশগ্রহন করেন এবং ধানের শীষে ভোট প্রাদনের জন্য বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দিতে দেন। তারা বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য ধানের শীষে ভোট প্রার্থনা করেন। সেইসাথে প্রার্থী নিজে ভোটাদের নিকট যান এবং ধানের শীষে ভোট প্রার্থনা করেন। এসময় পুরো এলাকা মিছিলে নগরীতে পরিণত হয়।

এসময়ে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সৈয়দ সাইফুল ইসলাম মার্শাল, সহিদুন্নাহার কাজী হেনা, রাজপাড়া থানা বিএনপি’র সভাপতি শওকত আলী, মহানগর বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক আসলাম সরকার, রাজপাড়া থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন, মহানগর যুবদলের সাবেক সবাপতি ও ধানের শীষের প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট ওয়ালিউল হক রানা, রাজপাড়া থানা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক মুরাদ পারভেজ পিন্টু, ৭নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি বজলুর রহমান কচি, সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক বেলাল হোসেন, সহ-সভাপতি শাহ আলম, সাবেক কাউন্সিলর রেজাউল করিম নান্নু, সোহরাব হোসেন শেখ, ৬নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি গোলাম নবী গোলাপ, ৩নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি ওয়াজির, রাজপাড়া থানা জিয়া পরিষদেও সভাপতি ওয়েজ উদ্দিন, রাজপাড়া থানা যুবদলের সাবেক সভাপতি শাহনুর ইসলাম মিঠু, মহানগর যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন বাবলু, হাফিজুর রহমান আপেল, মহানগর মহিলা দলের যুগ্ম আহবায়ক মুসলেমা বেলি, নাসিরা খানম, জান্নাতুল ফেরদৌস, যুবদল নেতা বাধন, সাগর, মামুন. নাজমুল, মোস্তাক, রুবেল, মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রবি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাহিন, ছাত্রনেতা আসাদ, রাতুল, লিমন, সাব্বির, জীবন ও নাইসসহ অত্র ওয়ার্ড বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকমী ও সমর্থকগণ উপস্থিত ছিলেন।

SHARE