আ.লীগের ইশতেহার উন্নয়নের পথ উন্মোচন করবে: বাদশা

140

স্টাফ রিপোর্টার :ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ একাদশ সংসদ নির্বাচনে যে ইশতেহার ঘোষণা করেছে তা দেশের উন্নয়নের পথ উন্মোচন করবে বলে মন্তব্য করেছেন শরীক দল বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা। তিনি বলেন, অত্যন্ত কার্যকর এই ইশতেহার বাস্তবায়ন হলে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের উন্নত দেশে পরিণত হবে।

নির্বাচনে রাজশাহী-২ (সদর) আসনে ১৪ দল মনোনীত ও মহাজোট সমর্থিত এই প্রার্থী বুধবার সকালে নগরীর ভাটাপাড়া এলাকায় গণসংযোগকালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন। বাদশা বলেন, সরকার যখন ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ কিংবা ‘বাংলাদেশ বদলে দিন’ কর্মসূচি ঘোষণা করেছিল তখন অনেকেই প্রশ্ন তুলেছিল। কিন্তু বিশ্ব আজ স্বীকার করেছে বাংলাদেশ এগিয়ে গেছে। বর্তমান সরকার আবার রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এলে এই ইশতেহারও বাস্তবায়ন করে দেখানো হবে।

রাজশাহী সদরের টানা দুইবারের এই সংসদ সদস্য বলেন, প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন। বিএনপি বলছে, তাহলে কী আমরা দুর্নীতিবাজদের মেরে ফেলব? আমরা বলছি, কঠোর আইন প্রয়োগ হবে। দুর্নীতি করে কেউ পার পাবে না। দেশের টাকা পাচার পুরোপুরি বন্ধ হবে। দুর্নীতি বন্ধ হবে। তখন দেশে আরও বেশি উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন হবে।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দেয়া ইশতেহারের সমালোচনা করে বাদশা বলেন, তাদের ইশতেহার হাস্যকর। তারা বলেছে, সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে কোনো বয়সসীমা থাকবে না। আমরা বলছি, তরুণরা জাতির ভবিষ্যত। আগামীতে তাদের হাতেই দেশকে তুলে দিতে হবে। তাদের চাকরির ব্যবস্থা করতে হবে। তাই অগ্রাধিকার তাদেরই বেশি থাকা উচিত।

সকালে ফজলে হোসেন বাদশা নগরীর ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ভাটাপাড়া মোড় থেকে গণসংযোগ শুরু করেন। এরপর তিনি ডিঙ্গাডোবা ও লক্ষ্মীপুরসহ আশপাশের এলাকায় নৌকার পক্ষে ব্যাপক প্রচার চালান। বাড়ি বাড়ি গিয়ে তিনি বাসিন্দাদের হাতে নৌকা প্রতীকের লিফলেট তুলে দিয়ে ভোট প্রার্থনা করেন। কুশল বিনিময় করেন স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সঙ্গেও।

এ সময় তার সঙ্গে নগর আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক মো. কামরুজ্জামান, ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নুরুজ্জামান টুকু, ৭ নম্বরের কাউন্সিলর মতিউর রহমান মতি, বাংলাদেশ জাসদের নগর সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শফিক, রাজপাড়া থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ফিরোজ রহিম, যুগ্ম সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক শাহ আলম বাদশা, ওয়ার্ড সভাপতি সোহেল রানা বাবু ও নগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শফিকুজ্জামান শফিকসহ বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী ও সমর্থক উপস্থিত ছিলেন। ‘নৌকা’, ‘নৌকা’ শ্লোগানে তারা চারপাশ মুখরিত করে তোলেন।

SHARE