রাজশাহীতে ভোটের লড়াইয়ে ২৫ প্রার্থী

189

স্টাফ রিপোর্টার : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজশাহীর ছয়টি সংসদীয় আসনে এখন ভোটের লড়াইয়ে রইলেন ২৫ জন প্রার্থী। শেষ দিনে নির্বাচনী মাঠ থেকে ১১ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। একইসঙ্গে বিএনপির প্রার্থীরা তাদের দলীয় চূড়ান্ত মনোনয়নের চিঠি জমা দিয়েছেন। গতকাল রোববার রাজশাহী জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মামনুন আহমেদ অনিক জানান, শেষদিনে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন রাজশাহী-১ (গোদাগাড়ী-তানোর) আসনে বিএনপি প্রার্থী ব্যারিস্টার আমিনুল হকের স্ত্রী আভা হক এবং ওয়ার্কার্স পার্টির রফিকুল ইসলাম। রাজশাহী-২ (সদর) আসনে বিএনপির বিকল্প প্রার্থী সাহিদ হাসান ও জাতীয় পার্টির খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান ডালিম, রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মেরাজ উদ্দিন মোল্লা, রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) আসনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী তাজুল ইসলাম মোহাম্মদ ফারুক, বিএনপির বিকল্প প্রার্থী হাবিবা খাতুন ও অধ্যাপক নজরুল ইসলাম মন্ডল, বিএনএফ’র মোখলেসুর রহমান এবং রাজশাহী-৬ (বাঘা-চারঘাট) বিএনপির বিকল্প প্রার্থী নুরুজ্জামান খান মানিক ও বজলুর রহমান। এর মধ্যে রাজশাহী-৫ আসনে শেষ মুহূর্তে আপিলে প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ায় নাটকীয়ভাবে চূড়ান্ত প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়ন পান নাদিম মোস্তফা। ফলে এই আসনের বিএনপি প্রার্থী নজরুল ইসলামের প্রার্থিতা বাতিল হয়ে যায়। তবে নাদিমকে অবৈধ প্রার্থী হিসেবে দাবি করেছেন নজরুল ইসলাম। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজশাহীর ছয়টি সংসদীয় আসনে এবার মোট ৬৮ জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত দাখিল করেন ৫৩ জন। যাচাই-বাছাইয়ের সময় রিটার্নিং কর্মকর্তা ২৩ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করলে প্রার্থী থাকেন ৩০ জন। আর বাতিল হওয়া প্রার্থিদের মধ্যে ১৯ জন নির্বাচন কমিশনে আপিল করেন। বর্তমানে রাজশাহীর ছয়টি সংসদীয় আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় টিকে থাকলেন ২৫ জন প্রার্থী। রাজশাহী-১ আসন: এখানে আওয়ামী লীগের ওমর ফারুক চৌধুরী, বিএনপির সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার আমিনুল হক, ইসলামী আন্দোলনের আব্দুল মান্নান, বাসদের আলফাজ হোসেন। রাজশাহী-২ (সদর): মহাজোটের ফজলে হোসেন বাদশা, বিএনপির সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু, ইসলামী আন্দোলনের ফয়সাল হোসেন, সিপিবির এনামুল হক। রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসন: আওয়ামী লীগের আয়েন উদ্দিন, বিএনপির শফিকুল হক মিলন, ইসলামী আন্দোলনের ফজলুর রহমান, যুক্তফ্রন্টের মনিরুজ্জামান, সাম্যবাদী দলের সাজ্জাদ আলী। রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসন: আওয়ামী লীগের প্রকৌশলী এনামুল হক এমপি, বিএনপির সাবেক এমপি আবু হেনা ও ইসলামী আন্দোলনের তাজুল ইসলাম খান। রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) আসন: আওয়ামী লীগের ডা. মনসুর রহমান, বিএনপির সাবেক এমপি নাদিম মোস্তফা, জাতীয় পার্টির আবু হোসেন, ইসলামী আন্দোলনের রুহুল আমিন, জাকের পার্টির শফিকুল ইসলাম। রাজশাহী-৬ (চারঘাট-বাঘা) আসন: আওয়ামী লীগের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপি, বিএনপির আবু সাঈদ চাঁদ, ইসলামী আন্দোলনের আব্দুস সালাম সবুজ ও জাতীয় পার্টির ইকবাল হোসেন। যাচাই-বাছাইয়ের সময় রিটার্নিং কর্মকর্তা ২৩ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করলে প্রার্থী থাকেন ৩০ জন। আর বাতিল হওয়া প্রার্থিদের মধ্যে ১৯ জন নির্বাচন কমিশনে আপিল করেন। সেখানে ৭ জন প্রার্থিতা ফিরে পেলে মোট প্রার্থীর সংখ্যা দাঁড়ায় ৩৭ জন।

SHARE