অনশন ভাঙল রাবির এপিইই, রক্ত ঢেলে অবস্থান কর্মসূচি শুরু ইইই, অসুস্থ ২০

185

রাবি প্রতিনিধি : রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের (রাবি) দুই বিভাগ একীভূত করণের দাবিতে আমরণ অনশনে নামা ফলিত পদার্থবিজ্ঞান ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (এপিইই) বিভাগের শিক্ষার্থীরা অনশন ভেঙেছে। মঙ্গলবার দুপুরে বিভাগীয় শিক্ষকদের আশ্বাসে অনশন থেকে ফিরে আসেন তারা । অন্যদিকে রক্ত ঢেলে নতুনভাবে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেছে ইলেকট্রিক এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থীরা। এদিকে পাল্টাপাল্টি কর্মসূচীতে দুই বিভাগের মোট ২০ শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছে। দুইবিভাগ একিভূত হবে কি হবে না সে বিষয়ে আগামীকাল বুধবার একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় সিদ্ধান্ত হবে। এর আগে দুই বিভাগ একীভূতকরণের দাবিতে সোমবার ১১টা থেকে আমরণ অনশনে নেমে দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন। রাতেও অবস্থান কর্মসূচী পালন করেন ফলিত পদার্থ বিজ্ঞান ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থীরা। পরে মঙ্গলবার দুপুর ২টা পর্যন্ত টানা প্রায় ২৭ ঘণ্টা অনশন শেষে বিভাগের শিক্ষকদের আশ্বাসে অনশন থেকে সরে এসেছেন তারা। এ পর্যন্ত অনশনে অংশ নেওয়া ১৭ শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে জানা গেছে। এদিকে বিভাগ অসুস্থ শিক্ষার্থীরা হলেন, ১ম বর্ষের ইশরাত, তমা বিশ^াস, আশিক, আসওয়াদ, শহিদুল ইসলাম শুভ, দ্বিতীয় বর্ষের চৈতি ঘোষ, প্রিয়াংকা, মিহা নৌমিন, হৃদয় মাহমুদ, তৃতীয় বর্ষের রফিকুল ইসলাম, অনিকা তাবাসসুম পুস্প, সাবিরা খাতুন, কিশোর মাহমুদ, ৪র্থ বর্ষের মধুসূদন গুপ্ত, মমিনুন, মবিন, রাজ্জাক কিশোর প্রমুখ। এদিকে এপিইই শিক্ষার্থীদের বিপরীত পাশে বিভাগ একীভূতকরণের বিপক্ষে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে তবে মঙ্গলবার দুপুর থেকে রক্ত ঢেলে তাদের অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছে ইলেক্ট্রনিক ও ইলেক্ট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থীরা। দাবির পক্ষে অবস্থান নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করার কথা রয়েছে। তবে রক্ত দিতে গিয়ে তিন শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তারা হলেন, তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী নাজমুল ও আবু বকর সিদ্দিক এবং দ্বিতীয় বর্ষের দিপ্ত। এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, ‘এপিইই বিভাগের শিক্ষকদের আশ্বাসে শিক্ষার্থীরা অনশন থেকে সরে এসেছে’। দুই বিভাগ একীভূতকরণের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘দুই বিভাগ একীভূত করণের ব্যাপারে আগামীকাল এ্যকাডেমিক মিটিং এ সিদ্ধান্ত হবে’। বিশ^বিদ্যালয় প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. চৌধুরী মো. জাকারিয়া বলেন, এ বিষয়ে বিশ^বিদ্যালয় একাডেমিক মিটিংএ সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এর বাইরে সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব না। এপিইই বিভাগরে চেয়ারম্যান ড. মো. আরিফুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের অনুরোধ করেছি অনশন থেকে সরে আসতে। তারা আমাদের অনুরোধ রেখেছে। আগামীকাল বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের এ্যাকাডেমিক মিটিংএ দুই বিভাগ একীভূতকরণে যুক্তি উপস্থাপন করা হবে’।

SHARE