বাম গণতান্ত্রিক জোট শরিকদের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ

171

গণধ্বনি ডেস্ক : আলাদাভাবে দলীয় প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করছে গণতান্ত্রিক বাম জোটের শরিক দলগুলো। এর মধ্যে নির্বাচন কমিশনের নিবন্ধন থাকা তিন শরিক দল স্বস্ব নির্বাচনী প্রতীকে ভোটের মাঠে থাকবে। বাকি পাঁচ দল এই তিন শরিকের প্রতীক নিয়ে লড়বে। তবে কোনো কোনো শরিক স্বতন্ত্র হিসেবে নির্বাচন করার প্রচেষ্টাও চালাচ্ছে।

গণতান্ত্রিক বাম জোট ইতিামধ্যে দেড় শতাধিক আসনে নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রার্থী বাছাইয়ের কাজ শেষ করেছে। নির্বাচন কমিশন বেঁধে দেওয়া শেষ সময়সীমা বুধবারের মধ্যেই এসব প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার কথা রয়েছে। তবে অনেকগুলো আসনে জোট শরিক দলগুলোর একাধিক প্রার্থী থাকায় আসনগুলোতে জোটের ‘একক প্রার্থী’ নির্ধারণের চেষ্টাও চলবে। সম্ভব না হলে আসনগুলো ‘উন্মুক্ত’ রাখা হবে। কিছু আসনে প্রার্থী পাওয়া না গেলে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রতিনিধিদের মধ্যে গ্রহণযোগ্য ও জনপ্রিয় ‘স্বতন্ত্র’ প্রার্থীদের জোটের সমর্থন দিয়ে জিতিয়ে আনার প্রচেষ্টা নেওয়া হবে।

সিপিবি’র প্রার্থীরা : গণতান্ত্রিক বাম জোটের অন্যতম প্রধান শরিক বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ৮৩ আসনে প্রার্থী দিয়েছে। দলীয় প্রতীক ‘কাস্তে’ নিয়ে নির্বাচন করবেন তারা। তবে নিবন্ধন না থাকা জোট শরিক বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক আন্দোলন ও ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগও কাস্তে নিয়ে নির্বাচনের কথা জানিয়েছে। এছাড়া বাম জোটের বাইরের দল ঐক্য ন্যাপ ও গণমুক্তি ইউনিয়নেরও সিপিবি’র প্রতীকে নির্বাচন করার কথা রয়েছে।

সিপিবি’র প্রার্থীরা হচ্ছেন, পঞ্চগড়-২:আশরাফুল আলম, ঠাকুরগাঁও-৩:প্রভাত সমীর শাজাহান আলম, দিনাজপুর-৩:বদিউজ্জামান বাদল, দিনাজপুর-৪:রিয়াজুল ইসলাম রাজু, রংপুর-৬:অধ্যাপক কামরুজ্জামান, কুড়িগ্রাম-২: উপেন্দ্রনাথ, কুড়িগ্রাম-৩:দেলোয়ার হোসেন, গাইবান্ধা-১:নূরে আলম মানিক, গাইবান্ধা-২:মিহির ঘোষ, গাইবান্ধা-৫:যজ্ঞেশ্বর বর্মন, বগুড়া-৫:সন্তোষ পাল, বগুড়া-৬:আমিনুল ফরিদ, নওগাঁ-৪:ডা. ফজলুর রহমান, নওগাঁ-৬:মনসুর রহমান, রাজশাহী-২:এনামুল হক, সিরাজগঞ্জ-৩:মোস্তফা নূরুল আমিন, কুষ্টিয়া-২:অধ্যাপক অহিদুজ্জামান পিণ্টু, ঝিনাইদহ-৪:ফণিভূষণ রায়, মাগুরা-১:আনিসুর রহমান, বাগেরহাট-২:খান সেকেন্দার আলী, বাগেরহাট-৪:শরীফুজ্জামান শরীফ, খুলনা-১:অশোক সরকার, খুলনা-২:এইচ এম শাহাদাত, খুলনা-৫:চিত্ত গোলদার, খুলনা-৫:সুভাষ ছানা মহিম, পটুয়াখালী-১:মোতালেব মোল্লা, পটুয়াখালী-২:শাহাবুদ্দিন মাস্টার, ভোলা-১:অ্যাডভোকেট সোহেল আহমেদ, পিরোজপুর-১:ডা. তপন বসু, পিরোজপুর-২:হাজী হামিদ, পিরোজপুর-৩:দিলীপ পাইক, টাঙ্গাইল-২: জাহিদ হোসেন খান, জামালপুর-২:মনজুরুল আহসান খান, জামালপুর-৩:শিবলুল বারী রাজু (সমর্থিত), জামালপুর-৫:আলী আক্কাস, শেরপুর-১:আফিল শেখ, ময়মনসিংহ-১:আবদুর রেজ্জাক, ময়মনসিংহ-৩:হারুণ আল বারী, ময়মনসিংহ-৪:অ্যাডভোকেট এমদাদুল হক মিল্লাত, নেত্রকোণা-১:ডা. দিবালোক সিংহ, নেত্রকোণা-২:মোশতাক আহমেদ, নেত্রকোণা-৩:অধ্যাপক ফরিদ হোসেন, নেত্রকোণা-৪:জলি তালুকদার, কিশোরগঞ্জ-১:অ্যাডভোকেট এনামুল হক, কিশোরগঞ্জ-২:নূরুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জ-৩:ডা. এনামুল হক ইদ্রিস, কিশোরগঞ্জ-৫:অধ্যক্ষ ফরিদ আহাম্মদ, মানিকগঞ্জ-২: নাসিরউদ্দিন, মুন্সীগঞ্জ-১:সমর দত্ত, মুন্সীগঞ্জ-৩:শ ম কামাল হোসেন, ঢাকা-১:আবিদ হোসেন, ঢাকা-২: সুকান্ত শফী চৌধুরী কমল, ঢাকা-৬:আবু তাহের বকুল, ঢাকা-১৩:আহসান হাবিব লাবলু, ঢাকা-১৪: রিয়াজউদ্দিন, ঢাকা-১৫:ডা. সাজেদুল হক রুবেল, ঢাকা-১৯:লীনা চক্রবর্তী, গাজীপুর-১:হানিফ মাহমুদ, গাজীপুর-২:জিয়াউল কবীর খোকন, গাজীপুর-৪:মানবেন্দ্র দেব, নরসিংদী-৪:কাজী সাজ্জাদ জহির চন্দন, নারায়ণগঞ্জ-১:মনিরুজ্জামান চন্দন, নারায়ণগঞ্জ-২:হাফিজুল ইসলাম, নারায়ণগঞ্জ-৩:আবদুস সালাম বাবুল, নারায়ণগঞ্জ-৪:ইকবাল হোসেন, নারায়ণগঞ্জ-৫:অ্যাডভোকেট মণ্টু ঘোষ, ফরিদপুর-২:হাফিজুর রহমান, ফরিদপুর-৩:রফিকুজ্জামান লায়েক, ফরিদপুর-৪:আতাউর রহমান কালু, শরীয়তপুর-৩:সুশান্ত ভাওয়াল, সুনামগঞ্জ-২:নিরঞ্জন দাশ খোকন, হবিগঞ্জ-৩:পীযুষ চক্রবর্তী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২:ঈশা খান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩:শাহরিয়ার মো. ফিরোজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫:শাহীন খান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬, অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোহাম্মদ জামাল, কুমিল্লা-৬:আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন, নোয়াখালী-৩:মজিবুল হক, নোয়াখালী-৬: মঈনুদ্দিন (লেনিন), চট্টগ্রাম-৮:সেহাব উদ্দিন সাইফু, চট্টগ্রাম-৯:মৃণাল চৌধুরী, চট্টগ্রাম-১৪:আবদুল নবী এবং কপবাজার-৩:দিপক বড়ূয়া।

বাসদ: বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) ৬০টি আসনের প্রার্থীরা দলীয় প্রতীক ‘মই’ নিয়ে নির্বাচন করবেন। প্রার্থী তালিকায় রয়েছেন, নীলফামারী-১:ইউনুস আলী, লালমনিরহাট-৩:আজমল হক পাটওয়ারী, রংপুর-৩:আবদুল কুদ্দুস, রংপুর-৪:সাদেক হোসেন, রংপুর-৫:মমিনুল ইসলাম, কুড়িগ্রাম-২:মোনাব্বের হোসেন মিন্টু, কুড়িগ্রাম-৩:সাঈদ আখতার আমিন, কুড়িগ্রাম-৪:আবুল বাশার মঞ্জু, গাইবান্ধা-১:গোলাম রাব্বানী, গাইবান্ধা-৩:সাদেকুল ইসলাম গোলাপ, জয়পুরহাট-১: অধ্যক্ষ ওয়াজেদ পারভেজ, জয়পুরহাট-২:উৎপল দেব, বগুড়া-৩:আবদুল গাফ্‌ফার, বগুড়া-৫:দেলোয়ার হোসেন, বগুড়া-৬:সাইফুজ্জামান টুটুল, বগুড়া-৭:শহীদুল ইসলাম, নওগাঁ-১:মঙ্গল কিসকু, নওগাঁ-২:দেবলাল টুডু, নওগাঁ-৩:জয়নাল আবেদীন মুকুল, রাজশাহী-১:আলফাজ হোসেন যুবরাজ, সিরাজগঞ্জ-২:নব কুমার কর্মকার, সিরাজগঞ্জ-৬:আবদুল আলিম, কুষ্টিয়া-৩:শফিউর রহমান শফি, ঝিনাইদহ-২:অ্যাডভোকেট আসাদুর রহমান, যশোর-২:আলাউদ্দিন, খুলনা-৩:জনার্দন দত্ত নান্টু, সাতক্ষীরা-২:নিত্যানন্দ সরকার, সাতক্ষীরা-৪:ইশারত আলী, বরগুনা-১:ফেরদৌস আহম্মেদ, পটুয়াখালী-৪: জহিরুল ইসলাম সবুজ, টাঙ্গাইল-১:আবদুস সামাদ, কিশোরগঞ্জ-১: অ্যাডভোকেট শফিকুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জ-৫:সাজেদুল ইসলাম সেলিম, ঢাকা-৮:প্রকৌশলী শম্পা বসু, ঢাকা-১৩:খালেকুজ্জামান লিপন, ঢাকা-১৭:আহসান হাবিব বুলবুল, ঢাকা-১৯:সৌমিত্র দাস, গাজীপুর-১:রাহাত আহমেদ, গাজীপুর-২:আবদুল কাইয়ুম, গাজীপুর-৩:কুদ্দুস সিকদার, নরসিংদী-১:অ্যাডভোকেট মোবারক হোসেন, নারায়ণগঞ্জ-১:জাহাঙ্গীর আলম গোলক, নারায়ণগঞ্জ-৩:বেলায়েত হোসেন, নারায়ণগঞ্জ-৪:সেলিম মাহমুদ, নারায়ণগঞ্জ-৫:আবু নাঈম বিপ্লব, গোপালগঞ্জ-১:ইসহাক আলী, সিলেট-১:জোবায়ের আহম্মেদ সুমন, মৌলভীবাজার-৩: অ্যাডভোকেট মঈনুর রহমান মগনু/ বদরুল হোসেন, হবিগঞ্জ-১:চৌধুরী ফয়সল সোয়েব, হবিগঞ্জ-২:জাবেদ আহমেদ, হবিগঞ্জ-৪:মুজিবুর রহমান ফরিদ, চাঁদপুর-৩:শাহজাহান তালুকদার, চাঁদপুর-৪:আনিসুজ্জামান ভূইয়া, ফেনী-৩:ডা. হারাধন চক্রবর্ত্তী, নোয়াখালী-৪:মঈনুদ্দিন চৌধুরী লিটন, নোয়াখালী-৫:সিরাজউল্লাহ, লক্ষ্মীপুর-৪: অ্যাডভোকেট মিলন মন্ডল, চট্টগ্রাম-১০:মহিন উদ্দিন, চট্টগ্রাম-১২:স.ম. ইউনুস এবং কপবাজার-১:রফিকুল আহ্‌সান বুলবুল।

বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি: দলীয় প্রতীক ‘কোদাল’ নিয়ে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির ১৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। তারা হচ্ছেন, গাইবান্ধা-৪:ছামিউল আলম রাসু, বগুড়া-১:সিপন কুমার রবিদাস, বগুড়া-৭:শাহাদাৎ হোসেন শান্ত, নওগাঁ-৫:আমজাদ হোসেন মুরাদ, পাবনা-২:শেখ মো. নাসির উদ্দিন, নাটোর-১:আনছার আলী দুলাল, খুলনা-৪:কে এম আলীদাদ, নেত্রকোনা-২:সজিব সরকার রতন, কিশোরগঞ্জ-৫ ডা. খন্দকার মোসলেউদ্দীন, মুন্সিগঞ্জ-৩:শেখ মো. শিমুল, ঢাকা-১:সেকান্দার হোসেন, নারায়ণগঞ্জ-৪:মাহমুদ হোসেন, মৌলভীবাজার-২:প্রশান্ত দেব ছানা, নেত্রকোণা-৪:আবু লাহাব নাইমুদ্দিন এবং রাঙ্গামাটি:জুঁই চাকমা।

গণসংহতি আন্দোলন: গণসংহতি আন্দোলন গতকাল মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলন করে দলীয় তিন প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে। নিবন্ধন না থাকায় এই দলের প্রার্থী কোদাল অথবা স্বতন্ত্র প্রতীকে নির্বাচন করবেন। দলের প্রার্থীরা হচ্ছেন ঢাকা-১২:জোনায়েদ আবদুর রহিম সাকি (জোনায়েদ সাকি), পাবনা-১:জুল হাসনাইন (জুলহাসনাইন বাবু) এবং চট্টগ্রাম-১০:সৈয়দ মোহাম্মদ হাসান মারুফ (হাসান মারুফ রুমি)।

গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টি: গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির প্রার্থী তালিকায় রয়েছে ঠাকুরগাঁও-১:মোমিনুর রহমান বিশাল, ঠাকুরগাঁও-৩:সুকোমল বিশ্বাস, বগুড়া-৩:লিয়াকত আলী, গাজীপুর-২:শফিউল্লাহ গাজী, ঢাকা-১৯:নয়ন আহমেদ, মানিকগঞ্জ-৩:রফিকুল ইসলাম অভি, রংপুর-৫:পলাশ হোসেন, মানিকগঞ্জ-২:বাবুল হোসেন, ঢাকা-৯:জাকির হোসেন প্রমুখ। নিবন্ধনহীন এই দলটি কোদাল প্রতীকে নির্বাচন করবে।

এছাড়া অন্য তিন শরিক বাসদ (মার্কসবাদী), ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগ এবং সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনও অল্প কিছু আসনে নির্বাচন করার কথা জানিয়েছে।

SHARE