মহানগরীর গণশৌচাগারের মান উন্নয়ন করা হবে : মেয়র লিটন

159

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, নগরবাসীর সেবা নিশ্চিতে আরো ১০ থেকে ১৫টি নতুন গণশৌচাগার গড়ে তোলা হবে। একইসঙ্গে বর্তমানে যে ১৭টি গণশৌচাগার আছে, সেগুলোর মান উন্নয়ন করা হবে। আজ মঙ্গলবার বিকেলে নগরভবনের মিনি কনফারেন্স রুমে নগরীর গণশৌচাগারের ইজারাদারদের সাথে সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, গণশৌচাগার অত্যন্ত জরুরি নাগরিক সেবা। কিন্তু এটি উপেক্ষিত। আমি প্রথম মেয়াদে দায়িত্ব পালনের সময় নগরীতে অনেকগুলো উন্নত মানের গণশৌচাগার গড়ে তুলেছিলাম। আগামীতে মোড়ে ১০ থেকে ১৫টি নতুন গণশৌচাগার গড়ে তুলতে চাই। একসঙ্গে বর্তমানে থাকাগুলো অগ্রাধিকার ভিতিত্তে সংস্কার করে মান উন্নয়ন করতে চাই। তিনি বলেন, যেহেতু এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ নাগরিক সেবা, এটি কঠোরভাবে মনিটরিং করা হবে।
সভায় নগরীর গণশৌচাগারগুলোর চিত্রসহ সার্বিক অবস্থার প্রতিবেদন প্রদান করতে সিটি কর্পোরেশনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন এবং একটি কমিটি গঠন করে দেন মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন।
সভায় অংশ নেওয়া ইজারাদারেরা বলেন, জনগুরুত্বপূর্ণ সেবা আমরা দেই। অথচ অনেক উপেক্ষিত আমরা। আগে সমস্যা নিয়ে সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তাদের কাছে এসেও সমাধান পাইনি। অথচ মেয়র মহদোয় আমাদের ডেকেছেন। সিটি কর্পোরেশনের ইতিহাসে কখনো গণশৌচাগারদের ইজারাদারদের নিয়ে এমন সভা হয়নি। এটি হলো প্রথম সভা, করলেন আমাদের মাননীয় মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন।
সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ্ মোমিনের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন প্যানেল মেয়র-১ ও ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু, সচিব রেজাউল করিম, প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল হক । উপস্থিত ছিলেন প্যানেল মেয়র-২ ও ১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রজব আলী, সাবেক দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র ও ২১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিযাম উল আযিম, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মো. মামুন ডলার, ভারপ্রাপ্ত জনসংযোগ কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান প্রমুখ।

SHARE