বগুড়ার সাতমাথায় এসে ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চান: বিএনপিকে এস এম কামাল

27

অনলাইন ডেস্ক : আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও দলের রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা এস এম কামাল হোসেন বলেছেন, ‘যারা ধর্ষকদের বিচার না চেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পদত্যাগ দাবি করে তাদের বিষদাঁত ভেঙে দেওয়া হবে। ধর্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের আইন করেছেন উন্নয়ন ও গণতন্ত্রের প্রতীক শেখ হাসিনা। যারা ধর্ষকদের শাস্তি দাবি করছেন তাদের সঙ্গে আওয়ামী লীগ একাত্মতা প্রকাশ করেছে।’ নিজেদের আমলে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন অপরাধের বিচার করতে না পারার জন্য বিএনপি নেতাদের বগুড়ার সাতমাথায় এসে ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চাইতে বলেন তিনি।

শনিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে বগুড়া শহরের সাতমাথায় মুজিবমঞ্চে বগুড়া পৌর আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তি ও দেশব্যাপী ধর্ষণের বিরুদ্ধে এই বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

এস এম কামাল হোসেন বলেন, ‘সামাজিক অস্থিরতার কারণে নির্যাতনের শিকার মা-বোনের মর্যাদাহানি হচ্ছে। সম্মিলিতভাবে এই সব সামাজিক ব্যাধি উপড়ে ফেলতে হবে।’

বিএনপি মহাসচিবের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘২০০১ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত আপনাদের আমলে যে ধর্ষণ হয়েছে, তারেক রহমানের ছত্রছায়ায় সন্ত্রাসের রাজ্য বানিয়েছিল, তার কথা তো বলেননি। আপনাদের আমলে বাংলা ভাই পুলিশের নাকের ডগায় তাণ্ডব চালিয়েছে।’ তাদের বিচার না করতে পারার জন্য বগুড়ার সাতমাথায় এসে ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চাইতে বলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক।

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী এ দেশের মানুষের আস্থার প্রতীক। যারা বঙ্গবন্ধুকন্যা সফল রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে কটূক্তি করে তাদের দাঁতভাঙা জবাব দেওয়া হবে। প্রতিটি এলাকায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সচেতন থাকতে হবে যেন কেউ আওয়ামী লীগ ও দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতে না পারে।’

বগুড়া পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও গাবতলী উপজেলা চেয়ারম্যান রফি নেওয়াজ খান রবিনের সভাপতিত্বে সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবর রহমান মজনু। আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আসাদুর রহমান দুলু, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট মকবুল হোসেন মুকুল, জেলা পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ খান রনি, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল হাসান ববি, জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ডালিয়া নাসরিন রিক্তা প্রমুখ।

SHARE