করোনায় মাঠে নগর ডিবি, মাদক উদ্ধারেও সফল

176

স্টাফ রিপোর্টার: চারদিকে মহামারি। প্রতিদিনই ধরা পড়ছে করোনা সংক্রমণ। মৃতের তালিকায় যোগ হচ্ছে নতুন নতুন নাম। আতঙ্ক সবখানেই। করোনাযুদ্ধে সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে কাজ করছে রাজশাহী নগর ডিবি পুলিশ। ঝুঁকি নিয়ে আইন-শৃংখলা রক্ষাসহ মাদক উদ্ধারেও নামছেন ডিবি পুলিশ সদস্যরা। রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে একটি মাদকের চালান আটকে দেয় নগর ডিবের একটি চৌকস দল। আমের ট্রাকে করে ৮০০ বোতেল ফেনসিডিলের একটি বড় চালান যাচ্ছিলো রাজধানী ঢাকায়। কিন্তু নগরীর কাশিয়াডাঙ্গা পেট্রোলপাম্প এলাকায় সেটি পুলিশের জালে আটকা পড়ে। এই ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে ট্রাক চালক মাসুদ (২৮) ও তার সহযোগী আবদুস সামাদকে (৫৬)। মাসুদ শেরপুরের ঝিনাইগাতি থানার পাইকুড়ি কানদুলি এলাকার আবের আলীর ছেলে। গাজিপুর সদরের ইটাহাটা এলাকায় অস্থায়ীভাবে বসবাস করছিলেন মানুস। তার সহযোগী আবদুস সামাদ গাইবান্ধারে সাঘাটা উপজেলার হলদিয়া দিঘলকান্দি এলাকার মৃত নাজিম উদ্দিনের ছেলে। তিনিও গাজিপুর চৌরাস্তার বাগদাদ টাওয়ার এলাকার অস্থায়ি বাসিন্দা। তাদের কাছ থেকে ২২ ক্যারেট আমসহ একটি মিনি ট্রাক (ঢাকা মেট্রো-ড-১২-০৭৫৩) জব্দ করে পুলিশ। নগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি) আবু আহাম্মদ আল মামুন এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আমের ট্রাকে ফেনসিডিল নেয়া হচ্ছিলো ঢাকায়। খবর পেয়ে পুলিশ ট্রাকটি আটক করে।
পরে ট্রাকে তল্লাশি চালিয়ে ৫ লাখ ৬০ হাজার টাকা মূল্যের ৮০০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় ৭৯ হাজার ৫০০ টাকা মূল্যের ২২ ক্যারেট আমসহ ট্রাকটি জব্দ করে পুলিশ।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা দীর্ঘদিন ধরে মাদক কারবারে নিজেদের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেছেন। সোমবার তাদের বিরুদ্ধে নগরীর কাশিয়াডাঙ্গা থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করে পুলিশ। ওই মামলায় দুপুরের পর ওই দুজনে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

পুলিশ বলছে, বিশেষ এই অভিযানে নেতৃত্ব দেন নগর ডিবির পরিদর্শক (নিরস্ত্র) খায়রুল ইসলাম। অভিযানে অংশ নেন এসআই আমিনুর রহমান ও এসআই আবদুস সালাম এবং তাদের টিম। পুরো অভিযান তত্ত্ববাধান করেন ডিসি (ডিবি) নিজেই।
এরই মধ্যে নগরীর ১২ থানা এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে মূর্তিমান আতঙ্ক হয়ে দাঁড়িয়েছে ডিবির ডিসি আবু আহাম্মদ আল মামুন। তবে ডিসি ডিবি নগরবাসীর কাছে সস্তির নাম। মাদকের বিস্তার রধে জোরালো ভুমিকা রাখায় তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে নগরবাসী।

SHARE